Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮

মহাসংকটে বিশাল জনগোষ্ঠী (ভিডিও)

কোভিড অতিমারির তাণ্ডবে জীবন-জীবিকা নিয়ে মহাসংকটে দেশের বিশাল জনগোষ্ঠী। অর্থনৈতিক মন্দায় বেড়েছে বেকারত্ব ও দারিদ্র্যের হার। পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে নগদ সহায়তার পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং সামাজিক সুরক্ষা বলয় তৈরির পরামর্শ দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা।

গত বছরের শুরুতেও নিজস্ব দোকানের পাশাপাশি হাস-মুরগির খামার চালিয়ে পরিবার নিয়ে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যেই জীবন কাটাতেন আব্দুল ওয়াহাব মিয়া। তবে অতিমারি কোভিড লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে তার সব স্বপ্ন। তাই তো জীবন সায়াহ্নে জামালপুর থেকে ঢাকায় এসে পা রাখতে বাধ্য হয়েছেন রিকশার প্যাডেলে।

তিনি বলেন, মুদি দোকান শেষ হওয়ার পর করোনা শুরু হয়। এরপর ছাগল-গরু ও গাছ বিক্রি করে বাড়িকে মরুভূমি করার পরও সংসার চলেনি। তারপর বাধ্য হয়ে রিকশা চালানো শুরু করি। কিন্তু দিনে ৮শ’ টাকা আয়ের দরকার হয়, সেখানে আয় হয় মাত্র ২-৩শ’ টাকা।

গেল বছরের মাঝামাঝি সময়ে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরি হারিয়ে অনেক দিন বেকার ছিলেন আল-আমিন। নানা জনের কাছে ধরনা দিয়েও জোগাড় করতে পারেননি আরেকটি চাকরি। শেষে ধার-দেনা করে ভ্যানে জুতা বিক্রির ব্যবসায় নেমেছেন তিনি।

তিনি বলছেন, সুদে টাকা এনে কিছু মাল এনেছি। মানুষ বের হয় না, বিক্রিও হয় না।

ওয়াহাব মিয়া কিংবা আল আমিনই নয়। গবেষণা সংস্থা সিপিডির জরিপে, করোনায় গেল এক বছরে দেশে কর্ম হারিয়েছেন ৬২ শতাংশ বা প্রায় সাড়ে ১০ কোটি মানুষ। যাদের বড় অংশই এখনো কাজে ফিরতে পারেননি। আর পিপিআরসির খানা জরিপের তথ্য মতে, কোভিডের কারণে দেশের দুই কোটি ৪৫ লাখ মানুষ নতুন করে দারিদ্রের শিকার হয়েছেন।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, এখন প্রবৃদ্ধির দিকে তাকানোর সময় নয়, দারিদ্রের কষাঘাত থেকে বিশাল জনগোষ্ঠীকে তুলে আনতে নগদ সহায়তার পাশাপাশি সামাজিক সুরক্ষা বলয় শক্তিশালী করা জরুরি।

আমাদের প্রত্যক্ষ আর্থিক সহায়তা দিতে হবে, যেভাবে আমরা করোনা ভ্যাকসিনকে দিয়েছি। সেভাবে এইখানে নির্দিষ্ট একটি গোষ্ঠীর কাছে সহায়তা নিয়ে আসা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে উদ্যোক্তাদের বিনা সুদে ঋণ দিতে সরকারকে এগিয়ে আসার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের।

এসআর/এসএস

RTV Drama
RTVPLUS