Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮

করোনায় স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে গর্ভবতী নারী ও নবজাতকরা (ভিডিও)

Pregnant women and newborns are at health risk in Corona
করোনায় স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে গর্ভবতী নারী ও নবজাতকরা

করোনা মহামারিতে বড় ধরনের স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়েছেন গর্ভবতী নারী ও নবজাতকরা। অবসটেট্রিক্যাল অ্যান্ড গাইনোকোলজিক্যাল সোসাইটি অব বাংলাদেশের তথ্য মতে, গেল দুই মাসে গর্ভবতী নারীদের করোনা সংক্রমণ বেড়েছে এবং হাসপাতালে সেবা কমে যাওয়ায় জেলা-উপজেলা পর্যায়ে আগের চেয়ে ২৫ ভাগ বেশি ডেলিভারি বাড়িতে হচ্ছে।

অন্যদিকে গাইনি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা আক্রান্ত গর্ভবতীদের মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। আর শিশু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মায়ের স্বাস্থ্যঝুঁকির প্রভাব পড়েছে নবজাতকের ওপরেও।

করোনা সংকটের সময়ে গর্ভবতীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি নতুন উদ্বেগ তৈরি করেছে। জাতিসংঘ শিশু তহবিল ইউনিসেফের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, করোনাকালে জন্মকালীন পরিচর্যা অন্তঃসত্ত্বা মা ও শিশুর জীবনরক্ষার প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

অবসটেট্রিক্যাল অ্যান্ড গাইনোকোলজিক্যাল সোসাইটি বাংলাদেশের তথ্যমতে, করোনা সংক্রমণের ভয়ে অনেকেই হাসপাতালে আসছে না। এ কারণে তৃণমূল পর্যায়ে আগের চেয়ে ২৫ ভাগ বেশি নারীর বাড়িতে সন্তান প্রসব করানো হচ্ছে। যা মা ও শিশুর জন্য স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করছে। করোনাকালে চিকিৎসাসেবা হাসপাতালে ডেলিভারি নিয়ে বেশিরভাগ নারী উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।

এ সমস্যার বিষয় নিয়ে অবসটেট্রিক্যাল অ্যান্ড গাইনোকোলজিক্যাল সোসাইটি বাংলাদেশের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ডা. রওশন আরা বলেন, যে কোনো ভাইরাস কিন্তু গর্ভবতী মায়ের ওপর প্রভাব ফেলে। এ কারণে অনেক সময় মায়ের জীবন ঝুঁকিতে পড়ে যায়। এসময় অক্সিজেনের সমস্যা দেখা দেয়। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে গর্ভবতী নারীদের সংক্রমণ বাড়ায় তৈরি হচ্ছে জটিলতা। তাই এসব নারীদের জন্য প্রয়োজন বিশেষ স্বাস্থ্য সুরক্ষা।

শিশুদের সমস্যার বিষয়ে নবজাতক ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মিজানুর রহমান আরটিভি নিউজকে বলেন, ডেলিভারির সময় কিন্তু করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও অন্য যে কোনো ভাইরাসেও আক্রান্ত হতে পারেন। এসময় তাদের শরীরে জ্বর আর শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। মা করোনা আক্রান্ত হলে সন্তানদেরও স্বাস্থ্যঝুঁকির আশঙ্কা থাকে বেশি। অন্যদিকে আবহাওয়া পরিবর্তন ও করোনাভাইরাসের প্রভাবে শিশুরা নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। তাই শূন্য থেকে ৩ বছর বয়সের শিশুদের বাড়তি যত্ন নিতে হবে।

জিএম/পি

RTV Drama
RTVPLUS