logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ মাঘ ১৪২৭

সড়ক পরিবহন আইন ঠিক মতো প্রয়োগ হচ্ছে তো? (ভিডিও)

পরিবহন চালক ও যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে করা হয়েছে ‘সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮’। জাতীয় সংসদে আলোচিত আইনটি পাস হলেও বাস্তবে এর প্রয়োগ এখনো তেমন ভাবে করা হচ্ছে না। সড়ক-মহাসড়কে দুর্ঘটনা কমাতে আইনে চালকদের  স্থায়ী নিয়োগ ও মাসিক বেতনের বিধান রাখা হলেও মালিকরা তা মানছেন না। পরিবহন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পরিবহন খাতকে শৃঙ্খলায় এনে সড়ক দুর্ঘটনা কমাতে হলে নতুন আইনের পুরোপুরি বাস্তবায়নের বিকল্প নেই। 

আবদুল আজিজ পেশায় ড্রাইভার। দূরপাল্লার বাস নিয়ে ভোর ৪টায় পাবনা থেকে রওয়ানা করে ঢাকা এসেছেন বেলা ১১টায়। এই বাস নিয়েই আবার দুপুরে পাবনা যাবেন। অথচ নতুন সড়ক পরিবহন আইনে এক চালক দিয়ে একদিনে একবারের বেশি ট্রিপ না দেয়ার কথা বলা আছে।

চালক বলেন, নির্ধারিত যে টাকা তা আমরা পাই না। মালিকরা আমাদের মূল মজুরির বেতন দেয় না। এছাড়াও কোম্পানি থেকে আমাদের কোনও নিয়োগ পত্র নেই।   

বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক খাজা গোলাম মুর্শিদ বলেন, চালক আর হেলপার মালিক পক্ষের সাথে সমঝোতা করে কাজ করে। তাদের এসব নিয়ে কোন জুড়ালো দাবি থাকে না। বেতন পাবে কি না সে তো নিজেও জানে না। কারণ তার চাকরি হলো এই গাড়িতে উঠ- এই গাড়ি থেকে নেমে যা। সাধারণত সম্পর্কটা এ ধরণের হয়। 

কেবল আবদুল আজিজ নয় গণ-পরিবহনের সব ড্রাইভার, সুপারভাইজাররাই, প্রতিদিন একাধিক ট্রিপ দেন। আপ-ডাউন যাত্রা করলে তবেই মেলে টাকা।

আইনে মাসিক বেতন দেয়ার কথা বলা হলেও মালিক পক্ষ বলছেন, বাস চালকদের বেতন দিয়ে গাড়ি চালানো সম্ভব নয়। এজন্য তাদের যুক্তিরও শেষ নেই!

কেবল মাসিক বেতন নয় সব চালককে চাকরির নিয়োগপত্র দেয়ার কথা থাকলেও মালিকরা সেটাও করছেন না। বেশিরভাগ চালক এ সম্পর্কে জানেনও না! মালিকদের সঙ্গে চালকদের মৌখিক চুক্তিতে গাড়ি চলে। তাই চুক্তিপত্রের প্রয়োজন পড়ে না বলে জানালেন মালিক সমিতির নেতা।

এদিকে পরিবহন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সব পরিবহন চালককে চাকরি ও আর্থিক নিরাপত্তা দিতে পারলে তাড়াহুড়ার প্রবণতা কমবে। ফলে দুর্ঘটনাও কমবে।

পরিবহন বিশেষজ্ঞ ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, চালকদের মাসিক আয়ের যদি নিশ্চিত একটা ব্যবস্থা থাকে। তাহলে সে যখন গাড়ি চালাবে তখন কিন্তু তাড়াহুড়া করে গাড়ি চালানো কমে আসবে। 

কেবল আইন প্রণয়ন নয়। আইনের কঠোর প্রয়োগের পাশাপাশি পরিবহন-সংশ্লিষ্ট শ্রমিকদের সঠিক দিক নির্দেশনা দিতে পারলে। সড়ক দুর্ঘটনা অনেকটাই কমবে বলে আশা করলেন তিনি।

জিএম/এসএস

RTV Drama
RTVPLUS