logo
  • ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

পেপার ফেরিওয়ালা খুকি মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত (ভিডিও)

paper, hawker, girl, example of humanity
খুকি
বয়স ষাটের কাছাকাছি। মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে আপনজনরা দূরে ঠেলে দিয়েছেন। তারপরও জীবনের কাছে হার না মেনে ছুটে চলেছেন অবিরাম। পত্রিকা বিক্রির সীমিত আয় দিয়েই স্থাপন করেছেন মানবতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। নিজে অভুক্ত থেকেও সমাজের অভাবগ্রস্ত গবীর শিক্ষার্থীদের সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন রাজশাহীর দিল আফরোজ খুকি।

 ১৯৬০ সালে কুষ্টিয়ায় জন্ম নেয়া খুকি এক সময় রাজশাহীর সাবিত্রী ও নাজমুল হক স্কুলের ছাত্রী ছিলেন। শৈশব বেশ ভালোই কাটছিল। বাবা ছিলেন আনসারের বড় কর্মকর্তা। তবে ১২ ভাই-বোনকে মানুষ করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয় বাবা-মাকে। অল্প বয়সে বিয়ে হওয়ায় খুকির জীবনে নেমে আসে অন্ধকার।

এক পর্যায়ে স্বামীর মৃত্যুর পর মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন খুকি। দূরে চলে যান আপনজনরা। জীবনের তাগিদে শুরু করেন পত্রিকা বিক্রি। শুরু হয় নতুন সংগ্রামী জীবন। রাজশাহী শহরে হেঁটে হেঁটে মানুষের ঘরে পৌঁছে দিতে শুরু করেন দেশ-বিদেশর নানা খবর। ৩০ বছর ধরে এভাবেই ছুটে চলেছেন।

পেপারের এজেন্ট এক ব্যক্তি বলেন, অন্যান্য হকারদের কাছে টাকা বকেয়া পাওয়া যায়। কিন্তু খুকির কাছে বকেয়া পাবো না।

স্থানীয়রা বলেন, সবার সহানুভূতি তার ওপর শুধু দোকানে নয় বিভিন্ন অফিসেও পেপার দিয়ে থাকে।

দৈনিক ৩০০ টাকা আয় থেকে খুকি নিজের জন্য ৪০ টাকা, এতিম খানার জন্য ১০০ টাকা, মসজিদ ও মন্দিরের জন্য ৫০ টাকা, ভিক্ষুকদের জন্য ১০ টাকা এবং হজে যাওয়ার জন্য ১০০ টাকা জমা রাখেন। এছাড়া পত্রিকা বিক্রির টাকা জমিয়ে আর্থিকভাবে অসচ্ছল কয়েকজন নারীকে গাভী ও সেলাই মেশিন কিনে দিয়ে তাদের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন খুকি।

খুকি বলেন, ন-হাটাতে অনেক মেয়ে আছে অসহায় তাদের সেলাই মেশিন কিনে দিয়েছি আর ছেলেদের রিকশা কিনে দিয়েছি। তারা সেলাই মেশিন ও রিকশা চালিয়ে মেয়েদের খাওয়াবে, কোনো অবহেলা করবে না।  প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সংগ্রামী এই নারীর বাড়ি পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল।

রাজশাহীর জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, তার বিল্ডিংয়ের যত কাজ আছে সব আমরা করে দিবো। এছাড়াও বিভিন্ন খাদ্য, চাল ও ডাল দেওয়া হয়েছে।  
খুকির জীবন থেকে হারিয়ে যাওয়া সুন্দর দিনগুলো আর ফেরত দেয়া সম্ভব নয়। তবে একটু ভালোবাসা পেলো হয়তো তার আগামীর দিনগুলো আনন্দে কাটবে।

জিএম

RTVPLUS