• ঢাকা বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬

পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পেলেন অ্যাশকিন-মৌরো-স্ট্রিকল্যান্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০২ অক্টোবর ২০১৮, ১৭:২০ | আপডেট : ০২ অক্টোবর ২০১৮, ২১:৩৫
এই বছর পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পেলেন উচ্চমাত্রার লেজার পালস নিয়ে কাজ করা যুক্তরাষ্ট্রের আর্থার অ্যাশকিন, ফ্রান্সের জেরার্ড মৌরো এবং এবং কানাডার ডোনা স্ট্রিকল্যান্ড। ১৯৬৩ সালের পর তৃতীয় নারী হিসেবে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পেলেন স্ট্রিকল্যান্ড। খবর: দ্য গার্ডিয়ান।

whirpool
স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে এই পুরস্কার ঘোষণা করে রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্সেস।

‘অপটিক্যাল টুইজার্স’কে আরও সমৃদ্ধ করার জন্য অর্ধেক পুরস্কার জিতেছেন অ্যাশকিন। আর ‘উচ্চ তীব্রতা উৎপন্ন, অতি ক্ষুদ্র অপটিক্যাল পালস পদ্ধতি’র জন্য যৌথভাবে বাকি অর্ধেক পুরস্কার জিতেছেন মৌরো ও স্ট্রিকল্যান্ড।

অর্থাৎ পুরস্কার বাবদ ৯০ লাখ সুইডিশ ক্রোনোর(সাত লাখ ৭০ হাজার পাউন্ড) অর্থের ৪৫ লাখ পাবেন অ্যাশকিন। আর বাকি ৪৫ লাখ ক্রোনোর যৌথভাবে পাবেন মৌরো ও স্ট্রিকল্যান্ড।

গত ৫৫ বছরে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পাওয়া একমাত্র নারী স্ট্রিকল্যান্ড এক টেলিফোন সাক্ষাৎকারে নোবেল কমিটিকে বলেন, আমি এই পুরস্কারে ভূষিত হয়ে সম্মানিত বোধ করছি। অনেকদিন নারী পদার্থবিজ্ঞানীদের কেউ এই পুরস্কার পাননি। আশা করি এক্ষেত্রে নারীদের দ্রুতগতিতে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া শুরু হলো এখন থেকে।

অ্যাশকিন নোবেল কমিটিকে বলেন, আমি এই মুহূর্তে কোনও সাক্ষাৎকার দিতে পারবো না। কারণ আমি আমার সর্বশেষ গবেষণা নিয়ে খুব ব্যস্ত।

উল্লেখ্য, গত সোমবার চিকিৎসাশাস্ত্রে চলতি বছর নোবেল পুরস্কার পেলেন জেফরি সি হল, মাইকেল রসবাশ ও মাইকেল ডব্লিউ ইয়ং। বায়োলজিক্যাল ক্লকস নিয়ন্ত্রণে মলিকিউলার মেকানিজম আবিষ্কারের স্বীকৃতি স্বরূপ তারা এই পুরস্কার পেয়েছেন। মানুষ, উদ্ভিদ ও অন্যান্য প্রাণী কিভাবে বিভিন্ন অভ্যাসে অভ্যস্ত হয় সে বিষয়ে গবেষণায় উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছেন তারা।
 

আরও পড়ুন :

কে/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়