জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড স্থগিত

আগে নথি পরে খালেদার জামিন আদেশ: হাইকোর্ট

প্রকাশ | ৩০ এপ্রিল ২০১৯, ১২:৫১ | আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৭

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
ফাইল ছবি

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাত বছরের সাজা ও অর্থদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে খালেদা জিয়াকে ওই মামলায় বিচারিক আদালতে দেওয়া ১০ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ স্থগিত করেছে এবং সম্পত্তি জব্দের আদেশে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে বলেছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার সকালে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে বিচারিক আদালতে থাকা ওই মামলার নথিপত্র দুই মাসের মধ্যে উচ্চ আদালতে পাঠাতে বলা হয়েছে। এছাড়া জামিন চেয়ে খালেদা জিয়ার করা আবেদনটি নথিভুক্ত করেছেন আদালত।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী জয়নুল আবেদীন ও ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন। এসময় রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও দুদকের পক্ষে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের উদ্দেশে শুনানিকালে আদালত বলেন, অন্য একটি মামলায় বিচারিক আদালতের রায়ে তার (খালেদা জিয়ার) পাঁচ বছরের সাজা হয়েছিল। উচ্চ আদালতে এ সাজা বেড়েছে। ওই মামলায় জামিন না হলে তিনি মুক্তি পাবেন না। তাই নথি আসুক। তখন জামিনের আবেদনটি দেখা হবে।

এর আগে গত মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) বিষয়টি আদালতে উপস্থাপন করলে হাইকোর্টের একই বেঞ্চ আজ আপিলের শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছিলেন। এর ধারাবাহিকতায় আজ বিষয়টি শুনানির জন্য কার্যতালিকায় ওঠে।

উল্লেখ্য, সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি, হত্যা, নাশকতা, রাষ্ট্রদ্রোহ, মানহানি, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতিসহ ৩০টিরও বেশি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় রায় হয়েছে। দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী রয়েছেন খালেদা জিয়া।

পি