• ঢাকা শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

ভোটের ফল বাতিলের দাবিতে রোকেয়া হলে রাতভর ছাত্রীদের বিক্ষোভ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৩ মার্চ ২০১৯, ১০:২৩ | আপডেট : ১৩ মার্চ ২০১৯, ১০:৪৭
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে রোকেয়া হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. জিনাত হুদার পদত্যাগ ও ভোটের ফল বাতিলের দাবিতে রাতভর বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

whirpool
মঙ্গলবার (১২ মার্চ) রাত ১০টার দিকে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন শিক্ষার্থী। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিক্ষোভ চলছিল। তারা জানান, রোকেয়া হলের ভেতরে চলা বিক্ষোভের নেতৃত্ব দিচ্ছেন কাজী মৌসুমী, মুনিরা দিলশাদ ইলা, শ্রবণা শফিক দীপ্তি, সৈয়দা তাসলিমা হোসেন নদীসহ বেশ কয়েকজন। তারা সবাই ডাকসুর বিভিন্ন প্যানেলের প্রার্থী ছিলেন।

বিক্ষোভের বিষয়ে রোকেয়া হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ও প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্যের জিএস প্রার্থী মুনিরা দিলশাদ ইলা বলেন, ভোট কারচুপির অভিযোগে আমরা হল প্রভোস্টের পদত্যাগ চাই। আর তার পদত্যাগের দাবিতেই আমরা এই বিক্ষোভ করছি। রোকেয়া হলে যত ভোটার রয়েছে, তার একভাগ ভোটও কাস্ট হয়নি। আর যতটুকু ভোট কাস্ট হয়েছে, সেখানেও কারচুপি করা হয়েছে।

ডাকসুর স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক প্রার্থী শ্রবণা শফিক দীপ্তি বলেন, প্রহসনের এই ভোটের ফল অবিলম্বে বাতিল করতে হবে। প্রভোস্ট জিনাত হুদা হলে কারচুপির নেতৃত্ব দিয়েছেন। তার পদত্যাগ না হওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব।  

এদিকে, রোকেয়া হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি। 

উল্লেখ্য, গেলো সোমবার (১১ মার্চ) ভোটের দিন সকাল ৮টা থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে ডাকসু নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে রোকেয়া হলের জন্য বরাদ্দ ৯টি ব্যালট বাক্সের মধ্যে তিনটি ব্যালট বাক্স পাওয়া না যাওয়ায় ভোটগ্রহণ শুরু হয় একঘণ্টা দেরিতে। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হলের তালাবদ্ধ একটি কক্ষ থেকে ট্রাংক ভরে রাখা বিপুল পরিমাণ ব্যালট উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে উত্তেজনা ছড়ালে ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। পরে ভোটগ্রহণ শুরু হলেও তা বর্জন করে ছাত্রলীগ ছাড়া বাকি সব সংগঠন।

এসজে/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়