logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

গরম খিচুড়ি আর চা খেয়ে ভোট দিতে আসুন: আতিক

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:০৩ | আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:৪৯
আজ বৃষ্টির দিন, ছুটির দিন, আমেজের দিন। আপনারা গরম খিচুড়ি আর চা খেয়ে ভোট দিতে আসেন। নৌকা মার্কায় ভোট দিন। বললেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কার মেয়র পদপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার সকালে উত্তরায় কেন্দ্রে ভোট দিতে এসে এ কথা বলেন তিনি।

বিজিএমইএ-এর সাবেক সভাপতি আতিকুল বলেন, উন্নয়নের জোয়ারে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সবাইকে কেন্দ্রে এসে ভোট দিন।

তিনি বলেন, এ কেন্দ্রে তুলনামূলকভাবে ভোটার কম। এখানে শুধু মেয়রের ভোট রয়েছে; যেসব এলাকায় কাউন্সিলরদের ভোট রয়েছে তাতে উপস্থিতি ভালো হবে। সবাই আসুন, নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করুন।

সবাইকে নিয়ে আধুনিক ঢাকা, সবাই মিলে সবার ঢাকা গড়ার প্রত্যয় জানিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বলেন, বিএনপি ভোটে এলে নির্বাচন আরও অংশগ্রহণমূলক হত।

আতিকুল বলেন, যদি আসতেন ভালো হতো। কারা এলো না এলো-সেটি বিষয় নয়। কেউ আসুক না আসুক নৌকার বিজয় হবে ইনশাল্লাহ। মিডিয়ার মাধ্যমে ভোটারদের প্রতি আহ্বান, আপনারা সবাই ভোটকেন্দ্রে আসুন, আপনাদের নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করুন।


এর আগে সকাল ৮টা থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সম্প্রসারিত ৩৬টি ওয়ার্ডে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। কোনও ধরনের বিরতি ছাড়াই চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। 

ডিএনসিসি ও ডিএসসিসি নির্বাচনে মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে মোট প্রার্থী সংখ্যা ৩৮২ জন। এর মধ্যে মেয়র পদে ৫ জন। দুই সিটিতে ৩৬টি সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিল পদে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ৩১০ জন। উত্তর দক্ষিণ সিটিতে ৬টি করে ১২টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিল পদে প্রার্থীর সংখ্যা ৬৯ জন। এর মধ্যে ডিএনসিসির ১৮টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ১১৬ জন, সমসংখ্যক ওয়ার্ডে ডিএসসিসিতে সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী ১২৫ জন। অন্যদিকে ডিএনসিসি‘র ৬ সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর প্রার্থী ৪৫ জন এবং ডিএসসিসিতে ২৪ জন।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানিয়েছেন, প্রতি সাধারণ কেন্দ্রে বিভিন্ন বাহিনীর ১৯ জন করে এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ২৩ জন করে ফোর্স মোতায়েন থাকবে।

এছাড়া নির্বাচনে পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসার সমন্বয়ে মোট ২৭টি মোবাইল টিম নিয়োজিত আছে। এছাড়া এদের ১৮টি স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত থাকবে। র‌্যাবের নিয়োজিত রয়েছে ২৭টিম, মোতায়েন করা হয়েছে ২৫ প্লাটুন বিজিবি। নির্বাচনের আচরণবিধি প্রতিপালন ও অনিয়মের শাস্তি প্রদানে ৫৪ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত রয়েছেন ২৪ জন।

এসজে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়