• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

ভোটের হাওয়া: বগুড়া- ১ ও ২

সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়-ঝাঁপ চলছে, জয়ের ব্যাপারে সবাই আশাবাদী

জিএম সজল, বগুড়া
|  ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ২১:৩৫ | আপডেট : ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ২২:২৮
বগুড়ার বিভিন্ন সংসদীয় আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়-ঝাঁপ শুরু হয়েছে। নির্বাচন সামনে রেখে এক আসনে ক্ষমতাসীন দলের পক্ষে একজন মাঠে থাকলেও বিএনপির রয়েছে একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী। অন্যদিকে, বগুড়ার ২ নম্বর সংসদীয় আসনটি জেলা রাজনীতিতে বেশ গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় নৌকার পক্ষে নির্বাচনী মাঠে আছেন কমপক্ষে ৮ জন এবং বিএনপির ৬ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী। 

বগুড়ার বন্যা বিপর্যস্ত জনপদ সারিয়াকান্দি ও সোনাতলা উপজেলা নিয়ে গঠিত এখানকার ১ নম্বর সংসদীয় আসন। দফায় দফায় বন্যা হওয়ায় এ আসনটি যেকোনো দলের প্রার্থীর জন্যই বেশ চ্যালেঞ্জিং।

নদী ভাঙনে সর্বস্বান্ত বাসিন্দাদের পাশে দাঁড়ানোর মধ্য দিয়ে নিজের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন ক্ষমতাসীন দলের একমাত্র মনোনয়ন প্রত্যাশী ও বর্তমান এমপি আব্দুল মান্নান। 

তিনি বলেন, বাড়ি পোড়া, নদী ভাঙা ইত্যাদি বিপদ-আপদের দিনে মানুষ অন্যান্য দলের নেতাদের পাশে পায়নি, পেয়েছে আব্দুল মান্নানকে, পাশে পেয়েছে আওয়ামী লীগকে। আমরা সাধ্যমত মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়িয়েছি। এজন্য জনগণের আস্থা আমাদের পক্ষেই।  

অন্যদিকে, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর বিএনপির কেউ এখানে সভা-সমাবেশ না করলেও আগামী নির্বাচন সামনে রেখে এবার মাঠে নেমেছেন বিএনপির একাধিক নেতা।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো. শোকরানা বলেন, এই আমলে আমার অঞ্চলের যেসব জনগণের উপর নির্যাতন করা হয়েছে। আমি নির্বাচিত হবার পর আইনের মাধ্যমে সুষ্ঠু তদন্ত করে জনগণের ক্ষতি পুষিয়ে দেবার চেষ্টা করবো।  

বগুড়া সোনাতলা উপজেলা চেয়ারম্যান আহসানুল তৈয়ব জাকির বলেন, বড় দল হিসেবে নির্বাচনের প্রস্তুতি তো থাকেই। সেটা আমাদের যথেষ্ট আছে। 

এছাড়া, মাঠে আছেন জাতীয় পার্টির একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী। জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোকছেদুল আলম মাস্টার বলেন, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত, প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমরা কাজ করবো। 

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত বগুড়ার-২ নম্বর সংসদীয় আসনেও নির্বাচন সামনে রেখে তৎপর ছোট-বড় বিভিন্ন দলের সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

এ আসন থেকে নৌকার টিকিট পেতে চান শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র তৌহিদুর রহমান মানিক, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান খানসহ আটজন। 

তৌহিদুর রহমান মানিক বলেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা নৌকা মার্কার প্রার্থী চায়, তারা নৌকার স্বপক্ষে কাজ করতে চায়।  

শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান বলেন, ছয় মাস আগে থেকে আমি মিটিং, উঠান বৈঠক করছি, জনসংযোগ চালাচ্ছি। আশা করি ফলাফল ভালো হবে। 

এ আসনে তৃণমূলের সঙ্গে বিগত কয়েক বছরের দূরত্ব কমানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। 

এ প্রসঙ্গে বগুড়া জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মীর শাহে আলম বলেন, কর্মীবান্ধব, সাংগঠনিকভাবে দক্ষ ও সচ্ছল কোনও প্রার্থীকে যদি মনোনয়ন দেয়া হয়, যেকোনো দলের প্রার্থীর সঙ্গে মোকাবেলা করে বিএনপি বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে।    

বগুড়া সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সাংসদ অধ্যক্ষ নূর আফরোজ জ্যোতি বলেন, নির্বাচনে যাকে মনোনয়ন দিক না কেন, আমরা সকলেই মিলে কাজ করবো। 

জাতীয় পার্টি থেকেও মনোনয়ন চাইছেন অনেকে। জাতীয় আইনজীবী ফেডারেশন, বগুড়ার সভাপতি অ্যাড. এ এ এম মইনুল ইসলাম বলেন, জোটগতভাবে যদি নির্বাচনে অংশ নেয়া হয়, তাতেও আমরা রাজি আছি। সেক্ষেত্রে আমি মনোনয়ন পেলে, আমি মনে করি জয়লাভ করবো।  

এছাড়াও, নাগরিক ঐক্য’র আহ্বায়ক এবং সাবেক ডাকসু ভিপি মাহমুদুর রহমান মান্নাও এ আসন থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে।

জিএ/এসএস 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়