মিয়ানমারকেই রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী (ভিডিও)

প্রকাশ | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২৩:০৪ | আপডেট: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩:৫০

আরটিভি নিউজ
জাতিসংঘে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

জাতিসংঘে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বাংলাদেশ ১১ লাখেরও বেশি জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিককে আশ্রয় প্রদান করেছে। তিন বছরের বেশি সময় অতিক্রান্ত হলেও এখন পর্যন্ত মিয়ানমার একজন রোহিঙ্গাকেও ফেরত নেয়নি। এই সমস্যা মিয়ানমারের সৃষ্টি এবং এর সমাধান মিয়ানমারকেই করতে হবে।’

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ৮টার দিকে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৫তম অধিবেশনে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এ ব্যাপারে আরও কার্যকর ভূমিকা গ্রহণের অনুরোধ জানান।

শনিবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে দিনের প্রথমার্ধের শুরুর দিকে বক্তৃতা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অধিবেশনে সশরীরে উপস্থিত ছিলেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা। এসময় প্রায় প্রতিটি সদস্য দেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭৪ সালে জাতিসংঘ অধিবেশনে ভাষণ দিয়েছিলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার সেই ভাষণই ছিল বাংলা ভাষায় জাতিসংঘ অধিবেশনে প্রথম কোনো ভাষণ। জাতির পিতার সেই ভাষণ ছিল বহুপাক্ষিকতাবাদের বহিঃপ্রকাশ। বর্তমান বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় জাতির পিতার সেই ভাষণ আজও প্রাসঙ্গিক।

জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর ভাষণের অংশবিশেষ তুলে ধরে বলেন, ‘জাতিসংঘ সনদে যে মহান আদর্শের কথা বলা হয়েছে তা আমাদের জনগণের আদর্শ এবং এই আদর্শের জন্য তারা চরম ত্যাগ স্বীকার করেছেন। এমন এক বিশ্ব ব্যবস্থা গঠনে বাঙালি জাতি উৎসর্গকৃত, যে ব্যবস্থায় সকল মানুষের শান্তি ও ন্যায়বিচার লাভের আকাঙ্ক্ষা প্রতিফলিত হবে।’

জাতির পিতার এই ঘোষণাকে ‘বহুপাক্ষিকতাবাদের বহিঃপ্রকাশ’বলে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭৪ সালে জাতিসংঘে তার দেওয়া দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য বর্তমান সংকট মোকাবিলার জন্য আজও সমানভাবে প্রাসঙ্গিক। ভাষণে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

করোনার কারণে বিদ্যমান বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘এ মহামারি আমাদের উপলদ্ধি করতে বাধ্য করেছে যে, এ সংকট উত্তরণে বহুপাক্ষিকতাবাদের বিকল্প নেই। জাতিসংঘের ৭৫তম বছর পূর্তিতে জাতিসংঘ সনদে অন্তর্নিহিত বহুপাক্ষিকতাবাদের প্রতি আমাদের অগাধ আস্থা রয়েছে। জাতীয় পর্যায়ে বহু প্রতিকূলতার মধ্যেও বহুপাক্ষিকতাবাদের আদর্শ সমুন্নত রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর।’

উল্লেখ্য, করোনা মহামারির কারণে এই প্রথম জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর আগে ১৬ বার সশরীরে উপস্থিত হয়ে ভাষণ দিলেও এবার তিনি ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভাষণ দিয়েছেন।
পি