যে কারণে বিপদে ৩০ লাখ অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলফোন ব্যবহারকারী

প্রকাশ | ১২ আগস্ট ২০২০, ১৫:২৫

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক, আরটিভি নিউজ
স্মার্টফোন। ফাইল ছবি।

বিশ্বের ৩০ লাখ অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলফোন ব্যবহারকারীদের ডাটাকে বিপদে ফেলেছে এই মোবাইলফোনে ব্যবহৃত কোয়ালকম চিপ। চেক পয়েন্ট সিকিউরিটির রিসার্চাররা কোয়ালকমের ডিজিটাল সিগন্যাল প্রসেসর চিপ (ডিসিপি) তে ৪০০টি ত্রুটি খুঁজে পেয়েছেন।

বাজারে যত অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন আছে তার মধ্যে ৪০ শতাংশ স্মার্টফোনে কোয়ালকম চিপ (Qualcomm) চিপ ব্যবহৃত হয়। এই চিপ সব দামের ফোনের মধ্যেই পাওয়া যায়। শুধু এটা নয়, গুগল, স্যামসাং, এলজি, শাওমিসহ আরও বিভিন্ন প্রিমিয়াম মোবাইলফোনে এই কোয়ালকম চিপ ব্যবহার হয়ে থাকে।

চেক পয়েন্টের রিসার্চাররা ডিসিপি চিপ টেস্ট করেছিল আর তাতে ত্রুটিযুক্ত ৪০০টি কোড পিস খুঁজে পেয়েছেন। এই ত্রুটিগুলোর জন্য হ্যাকাররা বিনা ইউজার ইন্টারাঅ্যাকশন ছাড়া যে কোনও স্মার্টফোনের সাহায্যে নজরদারি করতে পারে। এই ত্রুটিগুলোর সাহায্যে হ্যাকাররা ইউজারের ফোনে থাকা ছবি, ভিডিও, কল রেকর্ডিং, রিয়েল টাইম মাইক্রোফোন ডাটা, জিপিএস আর লোকেশনের ডাটা অ্যাকসেস পেয়ে যায়।

এই ৪০০টি ত্রুটির কারণে ম্যালিসিয়াস অ্যাপ ফোনের কল রেকর্ডিং করতে পারে, আবার মাইক্রোফোনের সাহায্যে ইউজারদের কথাবার্তাও শুনতে পারে। এছাড়াও হ্যাকাররা সার্ভিস অ্যাটাকের সাহায্যে ফোনকে ফ্রিজও করতে পারে। এইভাবে ব্যবহারকারীর ফোনের ডাটা আজীবন থেকে যাবে। এই সব ছাড়াও হ্যাকার আরও একটি বিপজ্জনক কার্যকলাপ চালাতে পারে। এটির সাহায্যে ফোনে ম্যালওয়্যার এবং ম্যালিসিয়াস কোড প্রবেশ করাতে পারে, এটি কেবল হ্যাকারদের অ্যাক্টিভিটি আড়াল করবে না, বরং ইউজার চাইলেও এই কোডগুলোকে ডিলিট করতে পারবে না।

কোয়ালকমের এই ত্রুটিগুলো সামনে আসার পরে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ফোন নির্মাতারা নতুন আপডেট দিয়ে এই ত্রুটিগুলোকে দূর করতে পারবে। সেই সঙ্গে এটাও বলেছে যে, চেক পয়েন্ট যে ত্রুটিগুলো খুঁজে পেয়েছে সেই গুলোকে আমরা পরীক্ষা করেছি, কিন্তু এখনও আমাদের কাছে এমন কোনও প্রমাণ নেই যে কেউ এর কোনও সুবিধা উঠিয়েছে। চেক পয়েন্ট সমস্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের ডিভাইস আপডেট করতে বলেছে।

উল্লেখ্য, চেক পয়েন্ট সিকিউরিটির রিসার্চাররা বিভিন্ন সফটওয়ারের ত্রুটি ও গ্রাহকদের নিরাপদে রাখতে কাজ করেন।
সূত্র- ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। 
জিএ