Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮

নবী (সা.)-এর মৃত্যুর পর তুরস্কে এসেছিল যে সাহাবীরা (ভিডিও)

নবী (সা.)-এর মৃত্যুর পর তুরস্কে এসেছিল যে সাহাবীরা (ভিডিও)
নবী (সা.)-এর মৃত্যুর পর তুরস্কে এসেছিল যে সাহাবীরা (ভিডিও)

বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর ইন্তেকালের পর তাঁর সাহাবীরা বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছিলেন। আল্লাহ’র দ্বীনকে আল্লাহ’র জমিনে প্রতিষ্ঠিত করার জন্যই ছড়িয়ে পড়েছিলেন বিশ্বনবীর (সা.) সাহাবীরা। এমনই একজন সাহাবী হযরত আবু দারদা (রা.)। তাঁর মাকবারা তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত। হযরত আবু দারদা (রা.) হচ্ছেন সরাসরি নবী (সা.)-এর একজন সান্নিধ্যপ্রাপ্ত সাহাবী।

হযরত আবু দারদা (রা.) এর কন্যার নাম ছিল ‘দারদা, আর এর নামেই পরিচিত ছিলেন এ সাহাবী। তিনি এমন একজন সাহাবী ছিলেন যাকে হাকীমুল উম্মাহ বলা হতো। অত্যন্ত বিজ্ঞ এবং জ্ঞানী সাহাবী ছিলেন তিনি। উমর ফারুক (রা.)-এ সাহাবীকে প্রায় সময়ই ডেকে নিয়ে হিকমাহপূর্ণ কথা শুনতেন। এই সাহাবী বদরযুদ্ধের পরবর্তী সময়ে রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর কাছে এসে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন।

বিশ্বনবী (সা.) কবরকে মসজিদে রূপান্তর করতে নিষেধ করেছেন। হযরত আবু দারদা (রা.)-এর কবর থেকে শিক্ষা নেয়া যেতে পারে যে, এত বড় সাহাবী হওয়ার পরও তাঁর কবর যদি সাদাসিধে হয় তাহলে আমাদের কবরগুলো কেন মাজার আকারে রূপ দেব। আল্লাহ তা’আলা অনেক জাতিকে ধ্বংস করে দিয়েছেন কবরকে মসজিদে রূপান্তর করার জন্য।

হযরত আবু দারদা (রা.) জীবনে তিনটি বিষয় সবসময় বলতেন। এর মধ্যে একটি হচ্ছে, মানুষ যা অপছন্দ করে আমি সেটা পছন্দ করি। বলা যেতে পারে, দরিদ্রতা। মানুষকে যখন দরিদ্রতা পেয়ে বসে তখন সে অনেকটাই আল্লাহকে ভুলে যায়। আমি দরিদ্রতা এই জন্য পছন্দ করি, আমি যখন দরিদ্রতায় পড়ে যাই তখন আমার রবকে খুব বেশি মনে করি।

আরও তথ্যসহ বিস্তারিত জানা যাবে ভিডিওতে

এসআর/

RTV Drama
RTVPLUS