Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

বিবাদ মীমাংসা করা একটি ইবাদত

বিবাদ মীমাংসা করা একটি ইবাদত
ফাইল ছবি

জীবনে চলার পথে মানুষে মানুষে ঝগড়া-বিবাদ হয়। পাড়া প্রতিবেশীর মাঝে ভুল বোঝাবুঝি হয়। ঘর-সংসারে, পরিবারে মান অভিমান হয়। বন্ধু-বান্ধব ও আপনজনের মধ্যে সম্পর্ক খারাপ হয়। এসব পরিস্থিতিতে ইসলাম সবাইকে আপস-মীমাংসার তাগিদ দেয়। সম্পর্ক পুনরুদ্ধার করার প্রতি উৎসাহিত করে। পরস্পরের মধ্যে ভালো সম্পর্ক পুনরায় গড়ে তোলার প্রতি উদ্বুদ্ধ করে। আপস-মীমাংসাকে ইসলাম একটি পৃথক ইবাদত হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

যারা আপস মীমাংসা করে দিবে তাদের জন্য ঘোষিত হয়েছে অসংখ্য সওয়াব ও পুরস্কার। হযরত আবু দারদা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, একবার নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, আমি কি তোমাদের এমন একটি আমলের কথা জানাব না, যার মর্যাদা রোজা, সদকা ও নামাজ থেকেও বেশি। আমরা বললাম, হ্যাঁ, জানিয়ে দিন। তিনি বললেন, বিবাদকারীদের মধ্যে আপস-মীমাংসা করে দেয়া। পক্ষান্তরে দুজনের মধ্যে বিবাদ সৃষ্টি করা নেক আমল ধ্বংসকারী। (আবু দাউদ ও তিরমিজি শরীফ)

এ হাদিস দ্বারা বুঝা যায় যে, দুই মুসলমানের মধ্যে আপস-মীমাংসা করে দেয়া সর্বোত্তম আমল। আল্লাহ তায়ালা চান, তাঁর বান্দারা দুনিয়ায় মিলেমিশে থাকুক। সবাই পরস্পর ভালো সম্পর্ক স্থাপন করুক। হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, প্রতি সপ্তায় দুবার সোম ও বৃহস্পতিবার সব মানুষের আমলগুলো আল্লাহর দরবারে পেশ করা হয়। তখন সব মুমিন বান্দাকে মাফ করে দেয়া হয়। তবে সেই ব্যক্তিকে নয়, যে তার কোনও মুসলমান ভাইয়ের সঙ্গে শত্রুতা বজায় রাখে। তাদের সম্পর্কে বলা হয়, যাতে তারা আপস-মীমাংসা করে নিতে পারে, সেজন্য তাদের সুযোগ দান করা হয়। (মুসলিম শরিফ)।

হে বন্ধু! দুই মুসলমানের মধ্যে আপস-মীমাংসা করা এতটাই গুরুত্বপূর্ণ আমল যে, তা করতে গিয়ে যদি কেউ মিথ্যাও বলে, আল্লাহ তা মাফ করে দেন। হযরত উম্মে কুলসুম বিনতে ওকবা ইবনে আবু মুইত (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি, ওই ব্যক্তি মিথ্যাবাদী নয়, যে মানুষের মধ্যে আপস-মীমাংসা করে দেয় এবং উভয় পক্ষকে উত্তম কথা বলে। এর একজনের পক্ষ থেকে অন্যজনকে ভালো কথা শোনায় (যদিও বা মিথ্যা হয়)। (বুখারী ও মুসলিম শরীফ:)।

আল্লার কাছে দুই মানুষের সম্পর্ক পুনঃস্থাপন করার আমলটি অনেক প্রিয়। পক্ষান্তরে দুই মুসলমানের মধ্যে সম্পর্ক ছিন্ন রাখা অত্যন্ত নিন্দনীয় আমল।

আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকলকে পরস্পর মিলেমিশে থাকার তাউফিক দান করুক। (আমিন)

জেবি/এমকে

RTV Drama
RTVPLUS