itel
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭

করোনা আপডেট

  •     গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় মৃত্যু ৩৮ জন, আক্রান্ত ৪০১৯ জন, সুস্থ হয়েছেন ৪৩৩৪ জন: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

নিউইয়র্কের ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারি নির্বাচন-২০২০: হেরে গেলেন বাংলাদেশি আমেরিকান প্রার্থীরা

কামরুজ্জামান হেলাল, যুক্তরাষ্ট্র
|  ২৫ জুন ২০২০, ০৯:৫৮ | আপডেট : ২৫ জুন ২০২০, ১০:৪৬
New York Democratic primary election 2020: Bangladeshi American candidates lose
নিউইয়র্কের ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারি নির্বাচন-২০২০

বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হলো নিউইয়র্কের ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রাইমারি নির্বাচন। মঙ্গলবার ২৩ এই নির্বাচনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। তবে নির্বাচনে হেরে যান বদরুন খান মিতা, সানিয়াত চৌধুরী, মেরী জোবায়দা, মাহফুজ ইসলাম, জয় চৌধুরীসহ বাংলাদেশি প্রার্থীরা। যদিও চূড়ান্ত ফলাফল পেতে বেশ কয়েকদিন সময় লাগবে। কেননা অ্যাবসেন্টি ভোট গণনা এখনো বাকী রয়েছে। তবে মঙ্গলবারের নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফলে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীদের মধ্যে কমিটিওম্যান পদে জামিলা আক্তার উদ্দিন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এবং স্ট্যাটান আইল্যান্ডের রিচমন্ড কাউন্টি ডেমোক্রেটিক ডেলিগেট অন জো বাইডেন স্লেট ও জুডিশিয়াল ডেলিগেট পদে জয়ী হয়েছেন মোহাম্মদ এ কে চৌধুরী জয়ী হয়েছেন বলে জানা গেছে। এদিকে নির্বাচনে বরাবরের মতো ভোটার উপস্থিতর সংখ্যা কম থাকলেও এবার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীদের সংখ্যা বেশি অংশ নেয়ায় বাংলাদেশি কমিউনিটির অংশগ্রহণ ছিল লক্ষণীয়। নির্বাচনে ইউএস কংগ্রেসে ২ জন, স্টেট অ্যাসেম্বলিতে ৩ জন বাংলাদেশি-আমেরিকান এবং ডিস্ট্রিক্ট লিডারসহ বিভিন্ন পদে অন্তত ১৫ জন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অংশ নেন। এর আগে নিউইয়র্ক থেকে এতো সংখ্যক বাংলাদেশি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেননি এবং নতুন প্রজন্মের এতো প্রার্থীও দেখা যায়নি।
এদিকে করোনাভাইরাস জনিত প্রেক্ষাপটে ভিন্ন পরিস্থিতিতে এবারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ায় বোর্ড অব ইলেকশন অফিস অ্যাবসেন্টি ব্যালটের ওপর গুরুত্বারোপ করে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। ফলে বোর্ড অব ইলেকশন অফিস নিউইয়র্কের ৭ লক্ষাধিক ভোটারের নামে তাদের বাসা-বাড়ির ঠিকানায় ব্যালট পেপার প্রেরণ করে বলে সূত্র জানায়। খবর ইউএনএ’র।
মঙ্গলবার ২৩ জুনের প্রাইমারি নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থীদের মধ্যে ইউএস কংগ্রেসওম্যান পদে নিউইয়র্কের কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক্ট-১৪ থেকে বদরুন্নাহার মিতা এবং কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক্ট-৫ থেকে সানিয়াত চৌধুরী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নিউইয়র্ক স্টেটের অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৩৭ (কুইন্স ব্রিজ, লং আইল্যান্ড সিটি, সানি সাইড, উডসাইড, ম্যাসপাথ ও রিজউড) থেকে অ্যাসেম্বলিওম্যান পদে মেরী জোবায়দা, অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-২৪ থেকে মাহফুজুল ইসলাম এবং অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৩৪ থেকে জয় চৌধুরী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এছাড়া ডেমোক্র্যাট দলীয় ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-২৪ থেকে ফিমেল লিডার পদে মৌমিতা আহমেদ, মেল লিডার পদে মাহতাব খান ও ইশতিয়াক চৌধুরী, অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৩২ থেকে মেল লিডার পদে মোহাম্মদ চৌধুরী ও ফিমেল লিডার পদে মোবাসসেরা বেগম, অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৩৯ থেকে ফিমেল লিডার পদে সাঈদা আক্তার, অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৫৪ থেকে মেল লিডার পদে নাফিজ আই চৌধুরী, অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৮৭ থেকে মেল লিডার পদে এন মজুমদার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। অপরদিকে অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-২৪ থেকে জুডিলিয়াল ডেলিগেট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন মোহাম্মদ এম রহমান। এছাড়া নিউইয়র্কের স্টেট অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-২৪ থেকে কমিটিওম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত জামিলা আক্তার উদ্দিন।
ইউএস কংগ্রেসে বর্তমানরাই জয়ী
সবশেষ প্রাপ্ত ফলাফলে মঙ্গলবারের নির্বাচনে বাংলাদেশি অধ্যুষিত নিউইয়র্কের ইউএস কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক্ট-৬ থেকে পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন বর্তমান কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং। তার প্রতি বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশির সমর্থন রয়েছে।
অপরদিকে কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক্ট-৫ থেকে পুনরায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে প্রবীণ ও বর্তমান কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিক্স বিজয়ী হয়েছেন। তার সাথে প্রাইমারিতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তরুণ রাজনীতিক বাংলাদেশি-আমেরিকান সানিয়াত চৌধুরী। এই আসনে কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিক্স-এর প্রাপ্ত ভোট ৩৩,০৯৭। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশি-আমেরিকান সানিয়াত চৌধুরী পেয়েছেন ৮,৯৮৬ ভোট।
বাংলাদেশি অধ্যুষিত কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক্ট-১৪ থেকে পুনর্নির্বাচিত হলেন বর্তমান কংগ্রেসওম্যান আলেকজান্ডার ওকাসিও-কর্টেজ। তিনি পেয়েছেন ২৭,১০৩ অর্থাৎ ৭২ দশমিক ৬% ভোট। এই আসনের অপর প্রার্থীদের মধ্যে মাইকেল কাসু-ক্যাবরেনা পেয়েছেন ৭,২৫৪ অর্থাৎ ১৯ দশমিক ৪% ভোট, বদরুন খান পেয়েছেন ২,০৩০ অর্থাৎ ৫ দশমিক ৪% ভোট আর স্যামুয়ের স্লোয়ান পেয়েছেন ৯২৩ অর্থাৎ ২ দশমিক ৫% ভোট।
এদিকে বাংলাদেশি অধ্যুষিত নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট ডিস্ট্রিক্ট-৩২ থেকে পুনরায় নির্বাচিত হলেন বর্তমান সিনেটর লুইস সেপুলভেদা। যিনি বাংলাদেশি কমিউনিটিতে ‘লুইস ভাই’ নামে সমধিক পরিচিত। এই আসনে লুইস সেপুলভেদা পেয়েছেন ৭,০৫৫ অর্থাৎ ৫৩ দশমিক ৭% ভোট। অপর প্রার্থীদের মধ্যে পামেলা স্টেওয়ার্ট-মার্টিনেজ পেয়েছেন ৪,৫০৩ অর্থাৎ ৩৪ দশমিক ৩% ভোট আর জন পেরেজ পেয়েছেন ১,৫৪০ অর্থাৎ ১১ দশমিক ৭% ভোট।
অপরদিকে এবারের নির্বাচনে নিউইয়র্ক স্টেটের অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৩৭ আসনের আলোচিত প্রার্থী মেরী জোবায়দা পেয়েছেন ৩৩% অর্থাৎ ২,৭১১ ভোট। এই আসনে বিজয়ী বর্তমান অ্যাসেম্বলিওমান ক্যাথেরিন নোলান পেয়েছেন ৫২ দশমিক ৫% অর্থাৎ ৪,৩১৪ ভোট। এই আসনের ৩ জন প্রার্থীর মধ্যে মেরী জোবায়দার আসন দ্বিতীয়।
অ্যাসেম্বলি ডিস্ট্রিক্ট-৩৪ আসনে জয় চৌধুরী পেয়েছেন ১৫ দশমিক ১% অর্থাৎ ৯৪৩ ভোট। তার এই আসনে বিজয়ী জেসিকা গঞ্জালেজ-রোজাস পেয়েছেন ৪০ দশমিক ৪% অর্থাৎ ২,৫১৪ ভোট। এই আসনের ৫জন প্রার্থীর মধ্যে জয়ের আসন তৃতীয়।
কুইন্স বরো প্রেসিডেন্ট পদে ডনোভান রিচার্ড এগিয়ে
বাংলাদেশি অধ্যুষিত নিউইয়র্ক সিটির কুইন্স বরো প্রেসিডেন্ট পদে ডনোভান রিচার্ড ৩৯,৮৬১ অর্থাৎ ৩৬ দশমিক ৮% ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। এই পদের অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে এলিজাবেথ ক্রাউলী পেয়েছেন ৩০,৭০৪ অর্থাৎ ২৮ দশমিক ৪% ভোট, কস্টা কন্সটানটিনিডিস পেয়েছেন ১৬,০৩৬ অর্থাৎ ১৫ দশমিক ৫% ভোট, এন্থনী মিরান্ডা পেয়েছেন ১৬,০৩৬ অর্থাৎ ১৪ দশমিক ৮% ভোট আর দাও ইয়াইন পেয়েছেন ৪,৮৪১ অর্থাৎ ৪ দশমিক ৫% ভোট।
সি/
 

RTVPLUS
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ১৫৩২৭৭ ৬৬৪৪২ ১৯২৬
বিশ্ব ১০৬০২০৭৬ ৫৮১৩১৮২ ৫১৪৩২২
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • প্রবাস এর সর্বশেষ
  • প্রবাস এর পাঠক প্রিয়