Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২৩
আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫০

করোনার ক্যাপসুল সংগ্রহে মরিয়া

করোনার ক্যাপসুল

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিশ্বজুড়ে মানুষের শরীরে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। তবে আগামীতে করোনাভাইরাসের অ্যান্টিভাইরাল ক্যাপসুল ‘মলনুপিরাভির’ আশার আলো দেখাচ্ছে। ক্যাপসুলটি করোনা সংক্রমিত রোগীর মৃত্যু ও হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার ঝুঁকি অর্ধেক কমাবে। ক্যাপসুলের অনুমোদনের আগেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশ আগে থেকেই অর্ডার দেওয়া শুরু করেছে।

জানা গেছে, করোনা প্রতিরোধ ক্যাপসুলের অনুমোদন চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (এফডিএ) কাছে আবেদন করেছে উৎপাদনকারী সংস্থা মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি মার্ক। অনুমোদনের আগেই ক্যাপসুলটি সংগ্রহে মরিয়া বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। এমন অসম প্রতিযোগিতা থেকে গরিব দেশগুলো পিছিয়ে পড়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

করোনা সংক্রমণের শুরুর পর থেকে এশিয়া–প্রশান্ত সাগরীয় অঞ্চলের বহু দেশ যথাসময়ে করোনার টিকা নিশ্চিতে হিমশিম খেতে হয়েছে। তবে এ দফায় আর সেই ভুল করতে চায় না তারা। সেজন্য আগেভাগেই ক্যাপসুলের অর্ডার দেওয়া শুরু করেছে দেশগুলো।

করোনা মহামারি মোকাবিলায় ক্যাপসুল ‘মলনুপিরাভির’ গেম চেঞ্জার হিসেবে আখ্যায়িত করা হচ্ছে। বিশেষ করে যারা টিকা নিতে অক্ষম তাদের জন্য এটি একটি চমৎকার ব্যবস্থা।

ক্যাপসুলটি সংগ্রহে বিভিন্ন দেশ আলোচনা শুরু করেছে। এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের অন্তত আটটি দেশ রয়েছে বলে জানা গেছে। ওষুধ বিশ্লেষক সংস্থা এয়ারফিনিটি জানিয়েছে, এই তালিকায় নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো দেশগুলো রয়েছে, যারা টিকাদান কর্মসূচি শুরু করতে বেশ বিলম্ব করেছিল।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ভ্যাকসিনের বিকল্প ক্যাপসুল। তবে বিভিন্ন দেশ যেভাবে ক্যাপসুল সংগ্রহে প্রতিযোগিতায় নেমেছে তাতে বিপাকে পড়বে গরিব দেশগুলো। ভ্যাকসিনের মতো ক্যাপসুলও ধনী দেশগুলো মজুত করতে থাকলে স্বভাবিকভাবেই লড়াইয়ে ছিটকে পড়বে দরিদ্র দেশগুলো।

নন প্রফিট ড্রাগস ফর নেগলেক্টেড জিজিজ ইনিশিয়েটিভের উত্তর আমেরিকার নির্বাহী পরিচালক র‌্যাচেল কোহেন বলেন, করোনা মহামারি মোকাবিলায় ক্যাপসুল ‘মলনুপিরাভির’ গেম কিছুটা চেঞ্জ করে দেওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে ভ্যাকসিন নিয়ে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলাম, ক্যাপসুল সংগ্রহে যেন এর পুনরাবৃত্তি না ঘটে।

মলনুপিরাভির মূলত একটি ইতিবাচক পদক্ষেপ। ২০০ মিলিগ্রামের চারটি ক্যাপসুল দিনে দুই বার করে পাঁচদিন খেতে হবে, মোট ৪০টি ক্যাপসুল।

সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া, সিএনএন।

এসকে/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS