Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

আইসিইউতে ভর্তি হওয়া দুই তৃতীয়াংশ রোগীর মৃত্যু

আইসিইউতে ভর্তি হওয়া দুই তৃতীয়াংশ রোগীর মৃত্যু

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার ৫ মে পর্যন্ত সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করেছে। কিন্তু এই লকডাউনও করোনার ভয়াল ছোবল থেকে মানুষকে রক্ষা করতে পারছে না। প্রতিনিয়ত মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে যারা গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পরেন তাদেরকে নেওয়া হয় হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ)। কিন্তু নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে প্রবেশ করা প্রায় দুই তৃতীয়াংশ রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে গত বছরের তুলনায় এবার রাজধানীর উত্তরায় কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে কয়েক মাসে কয়েকগুণ বেশি রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় রোগী ভর্তির সংখ্যা বেড়েছে। হাসপাতালটিতে যেসব করোনা রোগী ভর্তি হয়েছেন তাদের মধ্যে যারা গুরুত্বর অসুস্থ হয়ে পরছেন তাদেরকে আইসিইউতে নেওয়া হচ্ছে।আইসিইউতে প্রবেশ করানো প্রায় দুই তৃতীয়াংশ রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে চলতি বছরের জানুয়ারিতে ১২৮ জন করোনা রোগী ভর্তি হয়। এরমধ্যে গুরুত্বর অসুস্থ অবস্থায় আইসিইউতে ৪৩ জনকে নেওয়া হলে ২২ জন মৃত্যু যান। এর পরের মাস ফেব্রুয়ারিতে ৯০ জন ভর্তি হলে ৩৬ জনকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। এতে ২৪ জনের মৃত্যু হয়। মার্চ এবং এপ্রিল মাসের চিত্র কমবেশি একই রকম।

হাসপাতালটির আইসিইউ ইউনিটের দায়িত্বে থাকা অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ও ক্রিটিক্যাল কেয়ারের বিভাগীয় প্রধান ডা. মো. আসাদুজ্জামান বলেন, করোনা আক্রান্ত গুরুত্বর অসুস্থ অবস্থায় যেসব রোগীকে আইসিইউতে নেওয়া হচ্ছে তাদের অধিকাংশ মারা যাচ্ছেন। রোগীদের কোনো সহযোগিতাই যেন করতে পারছি না।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS