Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: আরটিভি নিউজ

  ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩৫

করোনা আক্রান্ত দুই শিশু-শিক্ষার্থী

করোনা আক্রান্ত দুই শিশু-শিক্ষার্থী

গোপালগঞ্জে পৃথক দুটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুই শিশু-শিক্ষার্থীর শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এরা হল, গোপালগঞ্জ শহরের ১০২নং বীণাপাণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী মোনালিসা ইসলাম (১০) এবং কোটালীপাড়া উপজেলার ৪নং ফেরধরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী তিনা খানম (৮)। করোনা সনাক্ত হওয়ার পর থেকে ওই দুটি বিদ্যালয়ে ওই দুই শ্রেণির পাঠদান বন্ধ রাখা হয়েছে।

গোপালগঞ্জ ২৫০-শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন-ওয়ার্ডে ভর্তি মোনালিসার মা মিতু খানম জানিয়েছেন, গত ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে তার মেয়ের মাথা ব্যাথাসহ হালকা জ্বর অনুভূত হয়। পরবর্তীতে অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় একপর্যায়ে ২১ সেপ্টেম্বর তার করোনা পরীক্ষা করে পজেটিভ পাওয়া যায়। পরে ২২ সেপ্টেম্বর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তারা শহরের শিশুবন এলাকার বাসিন্দা।

অপরদিকে, ৪নং কোটালীপাড়ার ফেরধরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সোহেলী পারভীন পান্না জানিয়েছেন, স্কুল খোলার প্রথমদিনই তাদের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী তিনা খানম বিদ্যালয়ে আসে; কিন্তু তখন তার মধ্যে করোনার কোন উপসর্গ দেখা যায়নি। পরে সে বাড়িতে থাকা অবস্থায় জ্বরে অসুস্থ হলে ১৬ সেপ্টেম্বর তার নমূনা দেয়া হয় এবং পরদিনই তার রিপোর্ট পজেটিভ পাওয়া যায়। এরপর থেকে স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির পাঠদান ১৪ দিনের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে। এখন ওই শিক্ষার্থী হোম-আইসোলেশনে আছে। শিক্ষার্থীর মাও করোনা পজেটিভ। সে তার পরিবার থেকেই করোনায় আক্রান্ত বলে তারা ধারণা করা হচ্ছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গোপালগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহমেদ জানিয়েছেন, স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি যাতে যথাযথভাবে মেনে চলে, তার জন্য যা কিছু করা প্রয়োজন আমাদের পক্ষ থেকে করা হবে। শিক্ষার্থীদের আতঙ্কিত না হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সতর্কিত হয়ে চলাফেরা করার আহ্বান জানান তিনি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনন্দ কিশোর সাহা জানিয়েছেন, প্রতিটি স্কুলে স্বাস্থ্য-সুরাক্ষার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিদিন পাঠদান চলছে। স্কুলে প্রবেশের সময় প্রতিটি শিক্ষার্থীর তাপমাত্রা পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। কোনও শিক্ষার্থীর করোনা-উপসর্গ দেখা দিলে তার নমূনা পরীক্ষা করা হবে। রিপোর্ট পজিটিভ পেলে ওই শ্রেণি বা বিদ্যালয় বন্ধ করে দেয়া হবে। তিনি আরও জানান, দু’এক দিনের মধ্যে করোনা প্রতিরোধ-সংক্রান্ত কমিটির সভায় এ ব্যাপারে পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এমএন

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS