Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

কুবি প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ০৩ জুলাই ২০২১, ১৯:২৬
আপডেট : ০৩ জুলাই ২০২১, ২০:১৪

কুবি শিক্ষকের পদোন্নতি স্থগিতের দায় এড়িয়ে যাচ্ছে রেজিস্ট্রার দপ্তর

কুবি শিক্ষকের পদোন্নতি স্থগিত দায় এড়িয়ে যাচ্ছে রেজিস্ট্রার দপ্তর 
ফাইল ছবি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক কাজী আনিছুল ইসলামের পদোন্নতি স্থগিতের ঘটনায় দায় এড়িয়ে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার দপ্তর। তারা এ ঘটনায় দায় চাপিয়ে দিচ্ছে সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্ল্যানিং কমিটির ওপর।

জানা যায়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭৯ তম সিন্ডিকেটে কুবি রেজিস্ট্রারের স্বাক্ষরে অনুমোদিত হয়ে কাজী আনিছকে সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেয়া হয়। পাশাপাশি দেয়া হয় যোগদানপত্রও। এরপর তিনি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সেই অনুযায়ী বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পেয়ে এসেছেন।

এই পদোন্নতির আবেদনে তার পূর্ববর্তী কর্মস্থল স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ থেকে দেয়া অভিজ্ঞতার সনদে ‘টু রেজিস্ট্রার' এর স্থলে ‘টু হুম ইট মে কনসার্ন' লেখা হয়। কিন্তু পরবর্তী ৮০ তম সিন্ডিকেটে ‘টু রেজিস্ট্রার' এর স্থলে ‘টু হুম ইট মে কনসার্ন' লেখায় তার পদোন্নতি স্থগিত করা হয়।

এ ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের জেরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সহ নানা মহলে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। একই সঙ্গে আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক), বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় নেটওয়ার্ক, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতার শিক্ষকদের সংগঠন মিডিয়া এডুকেটর নেটওয়ার্ক সহ বিভিন্ন সংগঠন থেকে এ ঘটনার নিন্দা জানানো হয়।

তবে এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহেরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, 'প্রথমত বিভাগীয় প্ল্যানিং কমিটি একটা ভুল করছে। রেজিস্ট্রার দপ্তরের সংস্থাপন শাখার আরও যাচাই করার দরকার ছিল। যেহেতু প্ল্যানিং কমিটি সুপারিশ করে দিয়েছে, সেক্ষেত্রে সরাসরি এটা বাছাই বোর্ডে চলে গেছে।

এই বিষয়ে জানতে রেজিস্ট্রার দপ্তরের সংস্থাপন শাখার সহকারী রেজিস্ট্রার মো. মনিরুজ্জামান বলেন, রেজিস্ট্রার দপ্তরে এগুলো যাচাই-বাছাই করার জন্য আলাদা কোনো কমিটি নেই। আমাদের কাছে যখন বিভাগীয় প্ল্যানিং কমিটি থেকে সুপারিশ আসে, তখন সেটা আর দেখার প্রয়োজন হয় না। আর যদি সুপারিশ করে না দেয় এবং কোনো সমস্যা থাকে তখন আমরা সেটা দেখি।

তবে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্ল্যানিং কমিটির একজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, আমরা যাচাই-বাছাই করে দেখেছি কাজী আনিছ স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে চাকরির যে অভিজ্ঞতা দাখিল করছেন সেটি সঠিক। ফলে আমরা তার পদোন্নতির জন্য সুপারিশ করে রেজিস্ট্রার দপ্তরে পাঠিয়েছি। এরপরের দায় দায়িত্ব রেজিস্ট্রার দপ্তরের। সে প্রসঙ্গে আমরা মন্তব্য করতে পারবো না।

তবে যতদূর জানতে পেরেছি, রেজিস্ট্রার দপ্তরও কাজী আনিছের পূর্ববর্তী চাকরিস্থলে খোঁজ নিয়েছে এবং তার অভিজ্ঞতার বিষয়টি সঠিক বলে জানতে পেরেছে।

সার্বিক বিষয়ে জানতে রেজিস্ট্রারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে, তিনি এই বিষয় নিয়ে আরটিভি নিউজকে কোনো বক্তব্য দিতে চাননি।

জিএম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS