logo
  • ঢাকা সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭

অনলাইনে সরকারি স্কুলে ভর্তির আবেদনে বিড়ম্বনা

Embarrassment, online government, school, admission, application
অনলাইনে সরকারি স্কুলে ভর্তির আবেদনে বিড়ম্বনা

ঢাকাসহ দেশের সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন করতে গিয়ে সার্ভার বিড়ম্বনায় পড়েছেন লাখ লাখ শিক্ষার্থী।

গত মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) থেকে অনলাইনে আবেদনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভর্তি শুরু হলেও সার্ভার ডাউন থাকায় আবেদন করতে না পেরে শিক্ষার্থীরা উদ্বিগ্ন, চিন্তিত অভিভাবকরাও। আগামী ২৭ ডিসেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। আবেদন গ্রহণ শেষে আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনলাইনে লটারির মাধ্যমে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থী নির্বাচন করা হবে।

সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তি ও রেজাল্ট দেখতে সার্ভার সমস্যার পাশপাশি সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে ভর্তির আবেদন ও রেজাল্ট দেখতে গিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়। বছরে পর বছর শিক্ষার্থীরা এ ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হলেও সংশ্লিষ্টরা এর স্থায়ী কোনো সমাধান করতে পারছেন না।

রামপুরার বাসিন্দা মোস্তাফিজুর রহমান মেয়ে তামান্না আক্তারকে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তির আবেদনের জন্য ফয়সাল ডিজিটাল কম্পিউটার সেন্টারে এসেছেন। কয়েক ঘণ্টা চেষ্টা করেও সার্ভারের সমস্যা থাকায় ভর্তির আবেদন পূরণ করতে পারেননি। শেষমেষ হতাশা নিয়েই বাড়ি ফিরে যান। মোস্তাফিজুরের মতো অনেকেই অনলাইনে সরকারি স্কুলে ভর্তির আবেদন পূরণ করতে গিয়ে সার্ভারের সমস্যায় পড়ছেন।

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, মেয়েকে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য গত দু’দিন ধরে অনলাইনে আবেদন করার চেষ্টা করছি। কিন্তু সার্ভার ডাউন থাকায় আবেদন করা সম্ভব হয়নি। এই বিড়ম্বনা থেকে স্থায়ী সমাধান দরকার।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এবার বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে কোনো পরীক্ষা না নিয়ে লটারির মাধ্যমে ভর্তি করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

মাউশির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঢাকা মহানগরীর ৪৪টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় তিনটি ফিডার শাখাসহ তিনটি গ্রুপে বিভক্ত থাকবে। আবেদনের সময় একজন শিক্ষার্থী একটি গ্রুপে পছন্দের ক্রমানুসারে সর্বোচ্চ পাঁচটি বিদ্যালয় নির্বাচন করতে পারবে। আর সারাদেশের শিক্ষার্থীরা আবেদনের সময় প্রতিষ্ঠান নির্বাচনকালে থানাভিত্তিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকা পাবে। তখন প্রার্থীরা প্রাপ্যতার ভিত্তিতে পছন্দক্রম অনুযায়ী সর্বোচ্চ পাঁচটি বিদ্যালয় নির্বাচন করতে পারবে।

আবেদন নেওয়ার পর অনলাইনের মাধ্যমে লটারি একজন শিক্ষার্থীকে একটি বিদ্যালয় নির্বাচন করে দেওয়া হবে। এতদিন একজন শিক্ষার্থী একটি গ্রুপের একটি বিদ্যালয়কে বেছে নেওয়ার সুযোগ পেত। ভর্তির আবেদন করতে ১১০টাকা ফি টেলিটকের প্রি-পেইড মোবাইল থেকে এসএমএস করে পরিশোধ করা যাবে। প্রতিবছর শুধু প্রথম শ্রেণিতে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হলেও অন্য শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হত। আর নবম শ্রেণিতে ভর্তি করা হতো জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে।

করোনার কারণে এবার প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী ভর্তিতে পরীক্ষা নেওয়া হবে। এবার জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা না হওয়ায় নবম শ্রেণিতেও অষ্টমের সমাপনীর ফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ নেই বলে জানিয়েছে মাউশি।

এফএ/পি

RTV Drama
RTVPLUS