logo
  • ঢাকা রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

শিল্পী ও দর্শনার্থীদের মিলনমেলায় মুখর সুলতান মেলা

নড়াইল প্রতিনিধি
|  ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:২৬
শিল্পী ও দর্শনার্থী মিলনমেলা সুলতান মেলা
বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ৯৫তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) থেকে নড়াইলে শুরু হয়েছে ১২ দিনব্যাপী সুলতান মেলা। সুলতান মেলার চতুর্থ দিনে অনুষ্ঠিত হয়েছে সবচেয়ে বড় আয়োজন আন্তর্জাতিক শিল্পকর্ম প্রদর্শনী ও আর্ট ক্যাম্প। এই শিল্পকর্ম প্রদর্শনী চলবে মেলার শেষদিন আগামী ২৭ জানুয়ারি পর্যন্ত। বাংলাদেশ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জিম্বাবুয়ে, ভারতসহ মোট ১১টি দেশের ১৫০টি চিত্রকর্ম স্থান পেয়েছে এই প্রদর্শনীতে।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) সুলতান ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব অধ্যাপক মুন্সী হাফিজুর রহমান এই প্রদর্শনী ও আন্তর্জাতিক আর্ট ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন।

শনিবার সকালেই জিম্বাবুয়ে, ভারত ও বাংলাদেশী মোট ২০ নবীন-প্রবীণ শিল্পীদের সম্মিলনে মুখর হয়ে ওঠে সুলতান মঞ্চ। সব মিলিয়ে গোটা সুলতান মঞ্চ প্রাঙ্গণে এখন বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ।

আন্তর্জাতিক চারুকলা প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে বেস্ট অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয় সাতজন শিল্পীকে। তাঁরা হলেন-বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন চিত্রশিল্পী মাহফুজা বিউটি, ইলিয়াস হোসেন, নবরাজ রায়, শরমিলা কাদের ও ভারতের শিল্পী শ্যামলী কর্মকার, সুপ্তি রায় ও রুপালি রায়। এছাড়া জিম্বাবুয়ে থেকে আগত চিত্রশিল্পী হাজভিনাই ব্রিজেট মুতাসাকে বিশেষ সুলতান সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এটা দ্বিতীয়বারের মতো সুলতান মেলার আন্তর্জাতিক চারুকলা প্রদর্শনী। সুলতান মঞ্চের পাশে ভিক্টোরিয়া কলেজের দর্শন বিভাগের হলরুমে চলছে এই প্রদর্শনী। আন্তর্জাতিক চারুকলা প্রদর্শনী দেখতে স্থানীয় দর্শকদের আগ্রহের শেষ নেই। দর্শন হলের দুটি রুমজুড়ে রয়েছে নানা ধরনের চিত্রকর্ম। গ্যালারিতে স্থান পেয়েছে সদ্য আমেরিকা থেকে একক চিত্রপ্রদর্শনী শেষ করে আসা শিল্পী মাহফুজা বিউটির আঁকা ‘ইম্পিডিমেন্ট’ ছবির রেপ্লিকা। শিল্পী মাহফুজা বিউটির ছবির বিশেষত্ব হলো নারী ও ফুল। ‘ইম্পিডিমেন্ট’ ছবিতে ফুলের ওপর বৃষ্টির ছোঁয়া দিয়ে শিল্পী সমাজে ফুলের মতো নারীর বাধা-বিপত্তিকে বুঝিয়েছেন। এছাড়া দেয়ালজুড়ে দেশি-বিদেশি সব চিত্রশিল্পীদের আঁকা ছবি দেখছেন নড়াইলের দর্শনার্থীরা। মুগ্ধ হয়ে ছবির পর ছবি দেখে চলেছেন নানা বয়সের মানুষ। একইসঙ্গে সুলতান মেলায় আন্তর্জাতিক শিল্পীদের আর্ট ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়। ভারত, জিম্বাবুয়ে, নেপাল ও বাংলাদেশের ২০ জন চিত্রশিল্পী নিয়ে আন্তর্জাতিক এ আর্ট ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়।

আর্টক্যাম্প অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী শিল্পী মাহফুজা বিউটি বলেন, ‘বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের নাম আজ বিশ্ববুকে বহুল প্রচারিত ও প্রতিষ্ঠিত। সুলতান বাংলার খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ প্রত্যহ রোদ-বৃষ্টিতে কষ্ট করা কৃষক-শ্রমিকের যাপিতজীবনের কঠিন বাস্তবতার প্রতিচ্ছবি সৃজনশীলতার অপার রঙে মূর্ত-বিমূত ক্যানভাসে নির্মাণ করেছেন। আমি এমন মহান চিত্রশিল্পীর জন্মভূমিতে আসতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি।’

ভারত থেকে আসা চিত্রশিল্পী রাজশ্রী চট্টোপাধ্যায় ও রুপালি রায় জানান, ‘এস এম সুলতানের জন্মভূমিতে আসতে পেরে আমরা ধন্য। শিল্পীর নামে এত বড় উৎসবে ছবি প্রদর্শনী করতে পারাটা সৌভাগ্যের ব্যাপার। তার শিল্পকর্ম আমাদের উজ্জ্বীবিত করে। মানুষ ও তার কঠিন বাস্তবতা নিয়ে ভাবতে শেখায়।’

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • শিল্প-সাহিত্য এর সর্বশেষ
  • শিল্প-সাহিত্য এর পাঠক প্রিয়