• ঢাকা মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

ভিডিও গেম ফতোয়া নিয়ে ইমামদের বিভক্তি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ১০:৩৬ | আপডেট : ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ১০:৪৫
সম্প্রতি ভিডিও গেম নিয়ে ফতোয়া দিয়েছে ইরাকের দ্যা কুর্দিশ ইউনিয়ন অফ ইসলামিক স্কলারস। কিন্তু অন্য একটি পক্ষ এই ফতোয়া মানতে নারাজ। তারা দ্যা কুর্দিশ ইউনিয়ন অফ ইসলামিক স্কলারসের দেয়া ফতোয়ার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদনে বলা হয়, প্লেয়ার আননোন ব্যাটল গ্রাউন্ডস নামের একটি ভিডিও গেম ইরাকের একটি অঞ্চলে বেশ জনপ্রিয়। ওই গেমের ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়েই ফতোয়াটি এসেছে।

western জানা গেছে, ইরাকি কুর্দিস্তানে ফতোয়া দেয়ার ক্ষমতা রয়েছে দ্যা কুর্দিশ ইউনিয়ন অফ ইসলামিক স্কলারসের। ফতোয়া দেয়ার ক্ষেত্রে মূলত তাদেরকেই কর্তৃপক্ষ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

তারপরও অন্য ইমামরা দ্যা কুর্দিশ ইউনিয়ন অফ ইসলামিক স্কলারসের ফতোয়ার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। এটা কৌতূহলী করে তুলেছে সবাইকে।

বিশ্বের অন্যান্য স্থানের মতো ইরাকেও প্লেয়ার আননোন ব্যাটল গ্রাউন্ডস ভিডিও গেমটি বেশ জনপ্রিয়। বিশেষ করে ইরাকি কুর্দিস্তানে গেমটির অসংখ্য ভক্ত রয়েছে। তাদেরই একজন বলছেন, "এটা আসলেই চমৎকার। আমার আশা মানুষ এই গেম খেলা অব্যাহতই রাখবে"।

কিন্তু এই গেমের প্রতি আসক্তি অনেকেই পছন্দ করছেন না। এমনই একদল ইমাম বলছেন, গেমটি নিষিদ্ধ করা প্রয়োজন। তাদের যুক্তি হলো, এভাবে সময় অপচয় ইসলাম সম্মত নয়।

এ সম্পর্কে ইরফান রাশেদ নামে কুর্দিস্তান ইউনিয়ন অফ স্কলারসের একজন ইমাম বলেন, মোবাইল ফোনে খেলার কারণে একজন মানুষের দৃষ্টিশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তার ভাষায়, "এটি শরীরের জন্যও ক্ষতিকর। নবী বলেছেন শরীরের একটি অধিকার আছে এবং এর যত্ন করতে হবে"।

কিন্তু উদারপন্থী অন্য কুর্দিশ ইমামরা এ ব্যাখ্যার পক্ষপাতী নন। এ সম্পর্কে মালা সামান সাঙ্গাভি নামে একজন কুর্দি ইমাম বলছেন, "এতদিন এ গেমটিই বাকী ছিল। এখন এটির ওপরও হাত পড়েছে। দেশের তরুণরা বিভ্রান্ত হয়ে পড়ছে"।

এছাড়া অনেক কিছুকেই হারাম বলা হচ্ছে যা তারা সমর্থন করছেন না। তাদের পরামর্শ তরুণদের নিজেদের মতোই থাকতে দেয়া হোক।

সূত্র: বিবিসি বাংলা
ডি/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়