ইয়ুথ অপরচুনিটিজের বাংলা ওয়েবসাইটের উদ্বোধন

প্রকাশ | ৩০ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৫২ | আপডেট: ৩০ জানুয়ারি ২০১৮, ২০:০১

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

ইয়ুথ অপরচুনিটিজের বাংলা ওয়েবসাইটের উদ্বোধন ঘোষণা করলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। আজ মঙ্গলবার সফটওয়্যার টেকনোলোজি পার্ক জনতা টাওয়ারে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়।

বিশ্বের এ দেশ থেকে ওদেশে, ও প্রান্ত থেকে এ প্রান্তে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা অজস্র সুযোগ সুবিধা শুধু একটি ক্লিকের বিনিময়ে তরুণদের হাতের মুঠোয় এনে দেবার সবচেয়ে বড় বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্ম হল ইয়ুথ অপরচুনিটিজ।

এখান থেকে বিনামূল্যে বিশ্বব্যাপী তরুণরা পেয়ে যায় তাদের জন্য উপযোগী সুযোগগুলোর খোঁজ। এই বিরাট চ্যালেঞ্জিং কাজটি সফলভাবে করার মধ্য দিয়ে তরুণদের উন্নতিতে অবদান রাখার জন্য ইয়ুথ অপরচুনিটিজের ঝুলিতে এসেছে অনেকগুলো সম্মাননা।

রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের কাছ থেকে ২০১৬ সালে কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ড, এশিয়াতে ফোরবস অনূর্ধ্ব ৩০- এ অন্তর্ভুক্তি, ব্র্যাক ম্যান্থন ইত্যাদি তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য।

গত বছর ইয়ুথ অপরচুনিটিজ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা সম্বলিত একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন চালু করে। যা সরকারের আইসিটি ডিভিশন থেকে জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত হয়। এই মোবাইল অ্যাপটি বিশ্বব্যপী ৫০ হাজারের বেশি সংখ্যক তরুণ ব্যবহার করছেন।

আন্তর্জাতিকভাবে বিপুল সাড়া ও গ্রহণযোগ্যতা পাওয়া ইয়ুথ অপরচুনিটিজ বিশ্বাস করে ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য পূরণে বাংলাদেশের তরুণদের আত্মোন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই। এই চিন্তাধারা থেকেই ইয়ুথ অপরচুনিটিজের বাংলা ওয়েবসাইটটি চালু করা। এখান থেকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সুযোগ সম্পর্কে মাতৃভাষা বাংলাতেই সব তথ্য পেয়ে যাবে বাংলাদেশের স্বপ্নবাজ তরুণরা।

প্রতিমন্ত্রী পলক তার উদ্বোধনী বক্তব্যে ইয়ুথ অপরচুনিটিজের বাংলা ওয়েবসাইট সম্পর্কে বলেন, বাংলাদেশি তরুণদের বিভিন্ন সুযোগ সম্পর্কে জানানোর জন্য এবং তাদের আত্মোন্নয়নের জন্য এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যথেষ্ট সময়োপযোগী।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ইয়ুথ অপরচুনিটিজের দু’জন সহপ্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন নূর এবং মাকসুদুল এএম মানিক তাদের চলমান কার্যক্রম এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন।

ওসামা বলেন, বাংলাদেশি অনেক তরুণ এখনো ইংরেজিতে অভ্যস্ত না, যার জন্য তারা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সুযোগকে কাজে লাগাতে পারে না এবং পিছিয়ে পড়ে। আমরা নিশ্চিত, ইয়ুথ অপরচুনিটিজ বাংলা তাদেরকে এদিক থেকে উন্নতির পথে এগিয়ে নেবে।

মাকসুদের মতে, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি এবং তাদেরকে বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সুযোগ সম্পর্কে জানানোর জন্য ইয়ুথ অপরচুনিটিজ বাংলা কার্যকর হবে।

আরও পড়ুন:

ওয়াই/এসআর