Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮
discover

সামাজিক যোগাযোগ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্তের ঘোষণা অস্ট্রেলিয়ার

সামাজিক যোগাযোগ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্তের ঘোষণা অস্ট্রেলিয়ার

বিশ্বখ্যাত সামাজিক যোগাযোগের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর আচরণ ও নতুন আইনের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। এ বিষয়ে একটি বিস্তৃত সংসদীয় তদন্ত পরিচালনা করবে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। বুধবার (১ ডিসেম্বর) এই তদন্তের ঘোষণা দেয়া হয়।

স্কট মরিসন জানান, বিশ্বব্যাপী অ্যালফাবেট লিমিটেড ও ফেসবুকের লাগাম টানতে যে প্রচেষ্টা চলছে অস্ট্রেলিয়া তার নেতৃত্ব দিচ্ছে। যা বিশ্বের অন্যান্য দেশের জন্য অনুকরণীয় মডেল হতে পারে।

এ ব্যাপারে মরিসন বলেন, ‘নতুন এ তদন্তের পরিধি অনেক বড় হবে। তাছাড়া কমিটির আইন প্রণেতাদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ব্যবহৃত অ্যালগরিদমগুলো তদন্ত করতে বলা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো কীভাবে শনাক্তকরণ, বয়স যাচাই করে ও তাদের কী কী সীমাবদ্ধতা রয়েছে তা তদন্তকারীরা খতিয়ে দেখবেন।’

তিনি বলেন, ‘বড় প্রযুক্তির উত্তর দেওয়ার জন্য বড় প্রশ্ন রয়েছে। পাশাপাশি যারা বড় বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান তৈরি করেছে তাদের দায়িত্ব রয়েছে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার। তবে এই নতুন তদন্তের ঘোষণা অস্ট্রেলিয়ার সরকার ও ফেসবুক-গুগলের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি করতে পারে। সম্প্রতি ফেসবুক তার নাম পরিবর্তন করে মেটা রেখেছে।’

চলতি বছরের শুরুর দিকে কঠোর নতুন আইন প্রয়োগ করেছে অস্ট্রেলিয়া । এই আইনের ফলে প্রযুক্তি সংস্থাগুলোকে কন্টেন্টের জন্য দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যমকে অর্থ পরিশোধ করতে হয়েছে। যারা সামাজিক মাধ্যমে মানহানিকর মন্তব্য পোস্ট করে তাদের সম্পর্কে তথ্য যাতে পাওয়া যায় এমন আইনেরও প্রস্তাব করেছে দেশটি।

অস্ট্রেলিয়ার একটি সংসদীয় কমিটিকে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে ২০২২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে।

সম্প্রতি মস্কোর একটি আদালত অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেটেডের প্রতিষ্ঠান গুগলকে আবারও ৩০ লাখ রুবল বা ৪০ হাজার ৪০০ ডলার জরিমানা করেছে। নিষিদ্ধ কন্টেন্ট সরিয়ে না নেওয়ায় প্রতিষ্ঠানটিকে এ জরিমানা করা হয়।

এদিকে এ বছরের অক্টোবরে গুগলকে জরিমানা করার হুমকি দিয়েছিল রাশিয়া। সার্চ ইঞ্জিন ও ইউটিউব থেকে নিষিদ্ধ কন্টেন্ট সরিয়ে ফেলতে বারবার ব্যর্থ হওয়ায় এই হুমকি দিয়েছিল দেশটি। বিদেশি প্রযুক্তি সংস্থাগুলোর লাগাম টানতে মস্কোর সবচেয়ে শক্তিশালী পদক্ষেপ ছিল এই জরিমানা। চলতি বছরে বেশ কয়েকবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোকে জরিমানা করেছে রাশিয়া ।

সূত্র: আল জাজিরা।

ডব্লিউএস/এমএন

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS