logo
  • ঢাকা শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

করোনা আপডেট

  •     গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু ২৮ জন, আক্রান্ত ১৭৬৪ জন, সুস্থ হয়েছেন ৩৬০ জন, নমুনা পরীক্ষা ৯৯৮৭টি: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

তরমুজ: কার জন্য মঙ্গল, কোথায় গণ্ডগোল?  

হাবিবা নাজলীন লীনা
|  ০৩ মে ২০২০, ২১:৫৭ | আপডেট : ০৩ মে ২০২০, ২৩:১৫
তরমুজ, উপকারিতা, সতর্কতা
তরমুজ। ফাইল ছবি।

করোনার এই সংকটময় সময়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে অনেকেই খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করেছেন। প্রতিদিনের খাবারের সঙ্গে যুক্ত করেছেন অতিরিক্ত ফলমূল। অন্যদিকে চলছে সিয়াম সাধনার মাস। রমজানে সুস্থভাবে রোজা পালন করার জন্যও অনেকে ফলমূল খাওয়ার প্রতি জোর দিয়েছেন। তবে এই সময় অনেকেই পুষ্টি ও গুনাগুণ সম্পর্কে না জেনে একই রকমের ফলমূল বেশি বেশি খাচ্ছেন। নিজের শরীরে কোন ধরণের ফলমূল জরুরী তা না ভেবেই খাচ্ছেন কখনও কখনও। এতে হিতে বিপরীতও হতে পারে।

উদাহরণ স্বরূপ বলা যায় তরমুজের কথা। ক্লান্তি দূর করে মনে প্রশান্তি আনতে গ্রীষ্মের এই সময়টাতে অনেকেই তরমুজ খান। তবে তরমুজের যতই গুনাগুণ থাকুন কোনো কোনো শরীরের জন্য সব সময় তা উপযোগী না। চলুন জেনে নিই তরমুজের পুষ্টিগুণ ও কিছু ক্ষতিকর দিক। যা না জেনে খেলে বিপদও হতে পারে।

তরমুজ:

  • গ্রীষ্মকালে পাওয়া যায় খুব কম ক্যালরিযুক্ত একটি ফল। তরমুজের প্রায় ৯২ শতাংশই পানি।
  • USDA ডায়টারি গাইডলাইন অনুযায়ী ১০০ গ্রাম তরমুজে রয়েছে মাত্র ৩০ কিলোক্যালরি। তাই এতে ওজন বৃদ্ধির ও ভয় নেই।
  • এটি ভিটামিন-বি৬ এর চমৎকার উৎস যা মস্তিষ্ক সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।
  • আরও আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা দেহের অক্সিডেটিভ স্ট্রেসজনিত অসুস্থতা কমায়।
  • নিয়মিত খেলে প্রোটেস্ট ক্যান্সার, কোলন ক্যান্সার, ফুসফুসের ক্যান্সার,ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকে না।
  • তরমুজের ক্যারটিনয়েড রাতকানা প্রতিরোধে কার্যকরী ভূমিকা রাখে ও দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে।
  • তরমুজে থাকা উচ্চ পরিমাণে সিট্রুলিন মানব দেহের ধমনির কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখে এবং রক্তচাপ কমিয়ে দেয়।

তরমুজ নিয়ে যে সতর্কতা অবলম্বন করা উচিৎ

  • খালি পেটে কখনও তরমুজ খাবেন না, এতে পেটের মধ্যে নানা রকম সমস্যা সৃষ্টি হয়ে থাকে। এমন কি ডায়রিয়া, পাতলা পায়খানা পর্যন্ত হতে পারে।
  • অ্যাজমা আছে যাদের তারা একদম তরমুজ খাবেন না।
  • রাতের বেলায় তরমুজ খাওয়া একেবারেই অনুচিত।
  • দৈনিক ৩০মিলিগ্রামের বেশি লাইকোপেন গ্রহণ খাদ্যে অরুচি, ডায়রিয়া, বমি বমি ভাবের কারণ হতে পারে।
  • যাদের দেহে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি পটাশিয়াম থাকে তাদের দৈনিক ১কাপের বেশি তরমুজ গ্রহণ করা উচিত নয়। অতিরিক্ত পটাশিয়াম অনিয়ন্ত্রিত হৃদকম্পন ও পেশীর ওপর নিয়ন্ত্রণ হ্রাস করে।
  • জ্বর, দাঁতের এলার্জি, মুখের ঘা, কিডনি ও পেটের সমস্যায় ভুগছেন এমন মানুষ; গর্ভবতী নারী এবং ডায়াবেটিস রোগীদের তরমুজ খাওয়ার সময় সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।

লেখা-

হাবিবা নাজলীন লীনা;

শিক্ষানবিস, খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান।

জিএ 

RTVPLUS
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৪৪৬০৮ ৯৩৭৫ ৬১০
বিশ্ব ৫৯০৬২০২ ২৫৭৯৮৭৭ ৩৫২০২৪
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • লাইফস্টাইল এর সর্বশেষ
  • লাইফস্টাইল এর পাঠক প্রিয়