• ঢাকা রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২ পৌষ ১৪২৬

ফ্যাশনে টি-শার্ট

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:২১ | আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৭:২০
টি-শার্ট সাধারণত তুলা বা পলিয়েস্টার দিয়ে তৈরি হয়। কিছুক্ষেত্রে দুই ধরনের মিশ্রিত সুতা দিয়েও টি-শার্ট তৈরি হয়। এ দুইয়ের মিশ্রণে জার্সি ধরনের সেলাই করার ফলে টি-শার্ট আরও কোমল ও আরামদায়ক হয়ে ওঠে।

সাধারণত নৈমিত্তিক পোশাক হিসেবেই টি-শার্ট পরা হয়ে থাকে। টি-শার্টের ফ্যাশন সকল বয়সের নারী-পুরুষের মধ্যেই প্রচলিত ও তারুণ্যের প্রতীক হিসেবে বিবেচিত। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ইংল্যান্ড এবং ফ্রান্সের মতো পশ্চিমা বিশ্বের দেশগুলোতে নারী-পুরুষ উভয়ের মাঝেই এর ব্যাপক ব্যবহার ও জনপ্রিয়তা দেখা যায়।

western ১৯৮০-এর দশক থেকে ব্যক্তিগত ভাবাবেগ প্রকাশের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে টি-শার্টের ব্যবহার শুরু হয়। ওই সময় ডিজাইনার ক্যাথরিন হ্যামনেট বড় করে স্লোগান ছাপানো টি-শার্টের ডিজাইন শুরু করেন। বর্তমানে স্লোগান ছাপানো টি-শার্ট আমাদের দেশে বেশ জনপ্রিয়। এছাড়া কয়েক বছর ধরে হাস্যরসাত্মক বার্তাবাহী টি-শার্টের প্রচলনও শুরু হয়েছে।

ইংরেজি ‘টি’ আকৃতির মতো দেখতে, তাই এ পোশাকটির নাম টি-শার্ট হয়েছে। টি-শার্টে সাধারণত কোনও বোতাম বা কলার থাকে না। শীত কিংবা গরম সব সময় নিজেকে ফিট রাখতে তরুণ-তরুণীদের পছন্দের শীর্ষে থাকে টি-শার্ট।

শীতে তরুণরা একটু মোটা কাপড়ের ফুলহাতা টি-শার্ট পরলেও গরমে হালকা সুতি কাপড়ের হাফহাতা টি-শার্ট পরে। বর্তমানে হরেকরকম রঙ আর ডিজাইন দিয়ে টি-শার্ট তৈরি করা হয়। গোল গলা, কলার দেওয়া অথবা ভি-গলা, সব রকমের টি-শার্টই ছেলেদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে। তবে টি-শার্টের উপর লেখা ওয়ান লাইনার কিন্তু ব্যাপক জনপ্রিয়।

টি-শার্ট সুতি হলেই তার সৌন্দর্য ফুটে ওঠে, তবুও ইদানিং উলেন ম্যাটেরিয়ালের হালকা ধরনের কিছু টি-শার্ট বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। এক্ষেত্রে নিজেকে কী রং মানাচ্ছে সেটা বুঝে নেওয়া জরুরি। তবে এই পোশাকটির ক্ষেত্রে সবচেয়ে জরুরি ফিটিং হওয়া।

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসগুলো থেকেই আপনার পছন্দের টি-শার্ট কিনে নিতে পারেন। তবে বর্তমানে টি-শার্ট কেনার জন্য অনলাইন শপিংমলের উপর আস্থা রাখছেন অনেকেই।

আরও পড়ুন :

ডি/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়