logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮

ত্বকের যত্নে দুধের জাদুকরী উপকারিতা জেনে নিন

ছবি: সংগৃহীত

ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যায় রানি ক্লিওপেট্রা দুধ দিয়ে স্নান করতেন। এ গল্প কম-বেশি সকলের জানা। তবে গল্প কতখানি সত্য তা নিয়ে তর্ক-বিতর্কে না গিয়ে দুধ দিয়ে গোসল করা যে বাস্তবে কেবলই বিলাসিতা তা নিয়ে কারো কোনো দ্বিমত নেই। বাস্তবতায় দুধ দিয়ে গোসল করার কি কোনো উপকারিতা রয়েছে, প্রশ্ন অনেকের মনে।

বিজ্ঞান বলছে ত্বক সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যায় দুধ অনেক উপকারী। কাঁচা অবস্থায় কিংবা টক স্বাদ থাকলে ত্বকের যত্নে ব্যবহার খুবই উপযোগী। কিন্তু ত্বকের যত্নে দুধ ব্যবহার করা কেবলই আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার। তারপরও এবার সুন্দর ত্বক ও ত্বকের চর্চায় দুধের উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নেব আমরা।

* ত্বকে বয়সের ছাপ পড়া খুব স্বাভাবিক বিষয়। নির্দিষ্ট একটা বয়সসীমা পার করার পর মানুষের মুখে ও ত্বকে বলিরেখা ফুটে উঠে। এ নিয়ে অনেকে লজ্জায় ভুগেন। কিন্তু দুধ ব্যবহারে এই সমস্যা থেকে জাদুকরী সমাধান পাওয়া যায়। দুধে থাকা ল্যাকটিক এসিড ত্বকের বলিরেখা কমাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

* ত্বককে এক্সফ্লোয়িটে করা অনেক বেশি প্রয়োজনীয়। এতে করে ত্বকের মৃত কোষগুলি বাইরে বের হয়ে আসে ও ত্বক উজ্জ্বল দেখায়। এ ক্ষেত্রে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে তুলা দিয়ে দুধ ব্যবহার করতে পারেন বা অন্যান্য জিনিসের সঙ্গে দুধ মিশিয়ে ফেস প্যাক বানিয়ে নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন।

* কোনো কারণে হয়তো রোদে চলাফেরা করতে হয়। এমন পরিস্থিতিতে রোদের তাপে ত্বক জ্বলে যায়, লাল ফুসকুড়িও পড়ে অনেকের। দুধে থাকা অ্যাকটিক এসিড সান ট্যানের ও রোদের জন্য হওয়া অ্যালার্জি প্রতিরোধে সহায়তা করে। ঠাণ্ডা দুধ তুলো নিয়ে মুখের চারপাশে ভালো করে মাখিয়ে নিন।

* স্কিনকে ময়েশ্চারাইজার করার জন্য বাজারে পাওয়া সচরাচর ক্রিম ব্যবহার না করে দুধ লাগান। বিভিন্ন ফেস প্যাকের সঙ্গে দুধ মিশিয়ে তা ময়েশ্চারাইজে পরিণত করুন। নিয়মিত ব্যবহারে স্কিন ভালো থাকবে এবং শুষ্ক হবে না। শীতকালে এটা নিয়মিত ব্যবহার করা যেতে পারে।

* দুধে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন রয়েছে তাই ত্বকে থাকা বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে দুধের বিকল্প কিছু হতে পারে না। কাঁচা দুধ ত্বকের যত্নে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। ত্বকের নোংরা ও তৈলাক্তভাব দূর করতে দুধ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। নিয়মিত ব্যবহারের ফলে নিজেই এর উপকারিতা বুঝতে পারবেন। তবে ত্বকের সমস্যা যদি দ্রুত ভিন্ন দিকে মোড় নিতে থাকে বা সমস্যা তীব্র আকার ধারণ করে তাহলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন।

সূত্র : হেলথলাইন

এসআর/এমকে

RTV Drama
RTVPLUS