logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭

লাইফস্টাইল ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৮:৪৯

কঠোর চেষ্টার পরও স্বাস্থ্য কমছে না এই ৪ ভুলে!

ছবি: সংগৃহীত

নিয়ম করে প্রতিদিন শরীরচর্চা করার পরও শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমছে না। রীতিমত অনাকাঙ্ক্ষিত বেড়ে যাওয়া ওজন কমানোর জন্য ডায়েট চার্টও তৈরি করে ফেলেছেন। কিন্তু দিন শেষে কোনো ফলই পাচ্ছেন না। এমন পরিস্থিতি হলে স্বাভাবিকভাবেই মন খারাপ হবে। প্রতিদিন পরিশ্রম করার পরও স্বাস্থ্য কমছে না। কিন্তু এমন তো হওয়ার কথা ছিলো না। আচ্ছা, কোথাও কী কোনো ভুল ছিল? সাধারণ কিছু ভুলের জন্য কঠোর পরিশ্রম করার পরও ওজন কমে না। চলুন সেসব ভুল সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক-

* খাওয়া-দাওয়া সবই ঠিক হচ্ছে। সরাসরি বললে শরীরের ওজন বেড়ে যাওয়ার জন্য ক্যালোরিযুক্ত খাবার খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। এতে প্রতিদিন প্রয়োজনের থেকে বম পরিমাণে ক্যালোরি নেয়া হচ্ছে শরীরে। স্বপ্নে প্রতিদিন স্লিম ফিগার দেখেন কিন্তু বাস্তবে সম্ভব হচ্ছে না। নিয়মিত প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খেতেই হবে। শরীরে ভিটামিনের হার অপরিপূর্ণ রাখা যাবে না। ভেতর থেকে শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য এবং ত্বক উজ্জ্বল রাখতে নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে।

* আপনি কাজ করতে ভালোবাসেন এমনটা স্বাভাবিক। তবে অনেক সময় টানা কাজ স্ট্রেসের কারণ হয়ে দাঁড়ায়, এমন সময়ই মুশকিল হয়ে পড়ে। কখনোই কাজের সময় অতিরিক্ত চাপ অনুভূত করা যাবে না। কেননা, অতিরিক্ত চাপ অনুভূতের ফলে শরীর থেকে কর্টিসল হরমোন ক্ষরণ হয়। গবেষণা বলছে, এ জাতীয় হরমোন বিপাকক্রিয়ায় প্রভাব ফেলে। স্বাভাবিক পাচন ক্ষমতা রোধ করে এবং এতে করে ক্যালোরি বার্ন করার ক্ষমতাও ধীরে ধীরে হ্রাস পায়।

* সারাদিন কাজের পর একটু পার্টিতে হইহুল্লোড় হতেই পারে। পার্টিতে না হয় একটু অতিরিক্ত অ্যালকোহল পানই করলেন, তাহলে কী মাসভর পরিশ্রম বিফলে যাবে। অ্যালকোহল পান এমনিই ক্ষতিকর, তাই পানের সময় পরিমাণমতো পান করুন। নিজেকে নিয়ন্ত্রণে রাখুন। তবে আপনি যদি আবার ধূমপায়ী হন তাহলেও অতিরিক্ত স্বাস্থ্য কমানো বেশ কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে।

* পরিবারের সকলেই কী বেশ স্বাস্থ্যবান? তাহলে বংশানুক্রমেই আপনার স্বাস্থ্য বেশি। এতে আপনাকে পরিশ্রম একটু বেশি করতে হবে।

* বেশি রাত জাগার অভ্যাস আপনার? মোবাইল বা বইয়ের পাতায় চোখ রেখে গভীর রাত পর্যন্ত জেগে থাকার অভ্যাস হয়ে থাকলে এখনই পরিবর্তন আনুন এই অভ্যাসে। তা না হলে স্বাস্থ্য তো কমবেই না বরং আপনার অতিরিক্ত স্বাস্থ্য থেকে আরও বড় ধরনের অসুখ হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

সূত্র : কলকাতা ২৪

এসআর/এম

RTV Drama
RTVPLUS