Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

মমতার শপথে অতিথিদের তালিকায় বিরোধী দলের প্রথম সারির নেতারা

প্রতীকি

রাজনীতির মাঠে পক্ষ-বিপক্ষ একে অপরকে বিভিন্ন কৌশলে ঘায়েল করার চেষ্টা করেন। তাই তো টানা তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচিত হওয়ার পর মন্তব্য করেছিলেন ‘এই প্রথম দেখলাম কোনো প্রধানমন্ত্রী ফোন করলেন না, এতে কিছু মনে করিনি’। কিছুক্ষণ পরেই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কার্যালয় থেকে দাবি করা হয় যে, ফোন করেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোনে পাওয়া যায়নি। তবে এসব সমীকরণ ভেঙে বুধবার (৫ মে) মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে নির্বাচনের আগে ও চলাকালে বিরোধীপক্ষের যেসব নেতা তীর্যক মন্তব্য করেছিলেন তাদেরকেও নিমন্ত্রণ জানিয়েছেন মমতা।

বিরোধীপক্ষের প্রায় সব নেতাকেই শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার নিমন্ত্রণ জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজনৈতিক সৌজন্য মেনেই শপথ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হবে বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু, রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও সিপিএম নেতা বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিদায়ী বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গা, গত বিধানসভার বিরোধী নেতা আব্দুল মান্নান, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী, কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য প্রমুখ।

বিরোধী নেতা-নেত্রী ছাড়াও নিজের দলের বেশ কয়েকজনকেও আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছ। এর মধ্যে রয়েছেন ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর (পিকে), পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম, দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, বিদায়ী মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, রাজ্যসভার সাংসদ সুব্রত বক্সীসহ একাধিক নেতা-নেত্রী।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS