logo
  • ঢাকা সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭

‘টুলকিট’ ব্যবহার: দিশাকে গ্রেপ্তারে ভারতজুড়ে তোলপাড়

Use of 'Toolkit': Fighting erupts across India over Disha's arrest
দিশা রবি।। ফাইল ছবি

দিশা রবিকে গ্রেপ্তার করা নিয়ে এই মুহূর্তে ভারতজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। দিশার বয়স মাত্র ২২ বছর। ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের বেঙ্গালুরুর বাসিন্দা এই তরুণী পরিবেশ আন্দোলনের এক নিরলস কর্মী। তার অপরাধ, কৃষক আন্দোলন সমর্থনকারী আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কিশোরী গ্রেটা থুনবার্গের ‘টুলকিট’ ব্যবহার করেছিলেন। সেই অপরাধে দিল্লি পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে। আপাতত ৫ দিন তাকে থাকতে হবে পুলিশি হেফাজতে।

গত শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দিশাকে দিল্লি পুলিশের সাইবার অপরাধ দমন শাখা বেঙ্গালুরু থেকে গ্রেপ্তার করে দিল্লিতে নিয়ে আসে। অভিযোগ, খালিস্তানি আন্দোলনকারীদের (ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলন) তৈরি ওই টুলকিট দিশা সম্পাদনা করে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন। ২৬ জানুয়ারির আগে নিকিতা ও শান্তনুর সঙ্গে ‘জুম কল’ মারফত যোগাযোগও করেছিলেন। পুলিশের দাবি, তারা আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের অংশীদার। দিশাই নাকি ওই টুলকিট গ্রেটা থুনবার্গকে পাঠিয়েছিলেন।

এনডিটিভিকে দিশা বলেছেন, টুলকিট তিনি তৈরি করেননি। শুধু দুটি লাইন সম্পাদনা করেছিলেন। গতকাল রোববার দিশাকে দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্টে আনা হলে শুনানি শেষে বিচারপতি তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন।

দিশাকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় প্রতিবাদে মুখর হয়েছে ভারতের অধিকাংশ রাজনৈতিক দল, পেশাজীবী ও মানবাধিকারকর্মীরা।

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেছেন, ‘এই গ্রেপ্তারের ঘটনা গণতন্ত্রের ওপর নজিরবিহীন আক্রমণ। কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করা কোনো অপরাধ হতে পারে না।’ কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী বলেছেন, ‘দেশ চুপ করে বসে থাকবে না।’

গর্জে উঠেছেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। দিশার পক্ষে দাঁড়িয়ে সোমবার তিনি বলেছেন, ‘অস্ত্রধারীরা আজ নিরস্ত্র এক নারীর ভয়ে তটস্থ। এক অস্ত্রহীন কিশোরী আজ সাহস ও আলোর ঝলকানি দেখাচ্ছেন।’ প্রিয়াঙ্কা তার টুইটে জুড়েছেন হ্যাশট্যাগ ‘রিলিজ দিশা রবি, হ্যাশট্যাগ ইন্ডিয়া বিয়িং সাইলেন্সড ও হ্যাশট্যাগ দিশা রবি’।

লোকসভায় কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী বলেছেন, ‘এটা লজ্জার যে ২২ বছরের এক কিশোরীকে অত্যাচারী সরকারের শিকার হতে হচ্ছে।’

সমালোচনায় মুখর কংগ্রেস নেতা ও সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পি চিদাম্বরমও। এ ঘটনায় প্রতিবাদে শামিল সমাজবাদী পার্টি, অকালি দল, বহুজন সমাজ পার্টিও।

দিশার মুক্তির দাবি জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের আইনজীবী ও কমলার বোনের মেয়ে মীনা হ্যারিস। ভারত সরকার কেন বারবার আন্দোলনকারীদের নিশানা করেছে, সেই প্রশ্ন তিনি তুলে তিনি দিশার মুক্তির দাবি জানিয়েছেন।

শুধু দিশাই নন, আইনজীবী নিকিতা জ্যাকব ও সমাজকর্মী শান্তনু মুলুক নামের আরও দুই জলবায়ু আন্দোলনকর্মীর বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশ মামলা করেছে। তাদের গ্রেপ্তারের জন্য জামিন অযোগ্য পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

কেএফ

RTV Drama
RTVPLUS