logo
  • ঢাকা সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭

দেশের প্রথম ডিজিটাল দুতাবাস হবে কুয়ালালামপুর হাইকমিশন

দেশের প্রথম ডিজিটাল দুতাবাস হবে কুয়ালালামপুর হাইকমিশন

'আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স' চালুর মাধ্যমে সম্পুর্ন ডিজিটাল হাইকমিশন হতে যাচ্ছে মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন। এর মাধ্যমে মালয়েশিয়া প্রবাসীরা যেকোন স্থান থেকেই সংযুক্ত হতে পারবে কুয়ালালামপুর হাইকমিশনের সঙ্গে, জানতে পারবে তাদের জিজ্ঞাসা। ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হইকমিশন কর্তৃক আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো: গোলাম সারওয়ার।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার পথে আমরা ধীরে ধীরে অগ্রসর হচ্ছি। এরই অংশ হিসাবে মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত ১০ লক্ষাধিক প্রবাসীদের কথা মাথায় রেখে কুয়ালালামপুর হাইকমিশন চালু করতে যাচ্ছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স। এটি চালু হলে ফেসবুকের মাধ্যমে হাইকমিশনের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে প্রশ্ন রাখতে পারবেন প্রবাসীরা। স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে সেকেন্ডের মধ্যে সেসব প্রশ্নের উত্তরও পেয়ে যাবেন তারা। আর এর মধ্যদিয়ে সারা বিশ্বে বাংলাদেশের দুতাবাসগুলোর মধ্যে কুয়ালালামপুরের দুতাবাস হবে সম্পুর্ণ ডিজিটাল দুতাবাস।

স্থানীয় সময় রোববার সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে কর্মকর্তাদের নিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে ঐতিহাসিক এ দিনটি পালনের কর্মসূচি শুরু করেন হাইকমিশনার মো. গোলাম সারওয়ার। করোনা পরিস্থিতিতিতে সরকারের বিধিনিষেধ থাকায় দুতাবাসের বাইরের কাউকে অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। তবে ফেসবুকের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয় যাতে সবাই এর সঙ্গে সংযুক্ত হতে পারেন।

সভা সঞ্চালনা করেন দূতাবাসের প্রথম সচিব (রাজনৈতিক) ও দূতালয় প্রাধন রুহুল আমিন। কোরআন তিলাওয়াত ও পরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ বড় পর্দায় ভিডিও চিত্রের মাধ্যমে দেখানো হয়। পরে রাষ্ট্রপ্রতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।

এসময় হাইকমিশনের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে হাইকমিশনার বলেন, ইউনেস্কো স্বীকৃত ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ বাঙালি জাতিকে মুক্তির পথ দেখিয়েছে। এ ভাষণের মাধ্যমে পুরো জাতি সেদিন একতাবদ্ধ হয়েছিলো বলেই অর্জিত হয়েছে স্বাধীনতা। ঐক্যবদ্ধ বাঙালীজাতি সবসময় শক্তিশালী বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ছুটিতে দেশে গিয়ে আটকে পড়া প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যারা দেশে আটকে আছেন তাদেরকে মাই ট্রাভেল পাস এ্যাপসের আবেদনের ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে বাকিরাও আসতে পারবেন। তবে এটি সম্পুর্ণ নির্ভর করছে নিয়োগকর্তার উপর। এজন্য সবাইকে যার যার নিয়োগকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করার পরামর্শ দেন হাইকমিশনার।

এসময় পোস্ট লাজুর মাধ্যমে এ মাসের মাঝামাঝি থেকে পাসপোর্ট হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। একই সঙ্গে হাইকমিশন প্রতিনিয়ত প্রবাসীদের সেবাদানের জন্য কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান হাইকমিশনার মো. গোলাম সারওয়ার।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS