logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৬ ফাল্গুন ১৪২৬

তুরস্কে ৬.৮ মাত্রার ভূমিকম্পে নিহত ১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ০৯:০১ | আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ১০:৪৮
18 killed in 6.8 scale earthquake in turkey
ছবি সংগৃহীত
তুরস্কের পূর্বাঞ্চলীয় অংশের জনবহুল এলাকায় শুক্রবার ৬ দশমিক ৮ মাত্রার শক্তিশালী এক ভূমিকম্পে অন্তত ১৮ জন নিহত হয়েছে। দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এ ঘটনায় আরও ৫০০ জনের বেশি আহত হয়েছে এবং ভবন ধসে পড়ে আরও প্রায় ৩০ জন ধ্বংসস্তুপের নিচে আটকা পড়েছে। খবর আল-জাজিরার।

তুরস্কের দুর্যোগ ও জরুরি ব্যবস্থাপনা প্রেসিডেন্সি বা এএফএডি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শুক্রবার রাত ৮টা ৫৫ মিনিটে ওই ভূমিকম্প হয়। ৬.৭ কিলোমিটার গভীরতার ভূমিকম্পটির কেন্দ্র ছিল এলাজিগের সিভরিচ শহরের কাছাকাছি। ওই ভূমিকম্পটির পর আরও বেশ কয়েকবার কম্পন অনুভূত হয়েছে বলেও জানিয়েছে এএফএডি। এসব আফটার-শেকের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ছিল ৫ দশমিক ৪ মাত্রা ও ৫ দশমিক ১ মাত্রার দুটি কম্পন। এলাজিগ প্রদেশটি রাজধানী আঙ্কারা থেকে প্রায় ৭৫০ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত।

পার্শ্ববর্তী প্রদেশগুলো থেকে আক্রান্ত এলাকায় ছুটে গিয়েছে উদ্ধারকারী দলগুলো। তারা অন্ধকার ও তীব্র ঠাণ্ডার মধ্যে ফ্লাডলাইটের সাহায্যে কাজ করছেন। তুরস্কের প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলুসি আকার বলেছেন, সেনাসদস্যদের সহায়তার জন্য অপেক্ষমাণ রাখা হয়েছে।

ভূমিকম্পের পর বহু বাসিন্দা গৃহহীন হয়ে পড়েছে বা অনেকে বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। টিভি ফুটেজে দেখা গেছে, পূর্বাঞ্চলীয় এলাজিগ প্রদেশের গেজিন জেলার একটি ধসে পড়া ভবনের ভেতর একজন আহত ব্যক্তিকে টেনে বের করছে উদ্ধারকারী।

তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেইমান সৌলু বলেছেন, এলাজিগ প্রদেশের বিভিন্ন ভবনের নিচে প্রায় ৩০ জন আটকা পড়েছেন বলে আমরা মনে করছি। এদিকে সৌলুর সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেট্টিন কোকা। তিনি বলেন, এলাজিগে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে দুজনের মৃত্যু হয় হার্ট অ্যাটাকে। আর অন্য পাঁচজনের মৃত্যু হয় মালাটিয়ায়।

তুরস্কের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভূমিকম্পের পর ৫৫৩ জন আহত হয়েছে, তাদের মধ্যে ১১ জনের অবস্থা গুরুতর। দেশটির পরিবেশমন্ত্রী মুরাত কুরুম বলেছেন, ভূমিকম্পে দুই প্রদেশে প্রায় ৩০টি ভবন ধসে পড়েছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তায়েপ এরদোয়ান এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ক্ষয়ক্ষতি কমাতে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তিনি বরেন, এলাজিগ ও অন্যান্য প্রদেশে অনুভূত হওয়া ভূমিকম্পের ক্ষয়ক্ষতি কমাতে সব ধনের ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ
  • আন্তর্জাতিক এর পাঠক প্রিয়