logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন

  ০৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৩:৪৬

নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে মুখোশ পরে হামলা, ভারতজুড়ে বিক্ষোভ

After the masked attack at the University of Nehru, protests all over India
ছবি সংগৃহীত
ভারতের রাজধানী দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (জেএনইউ) রোববার রাতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষিকদের ওপরে হামলার ঘটনায় পুরো দেশে নিন্দার ঝড় বইছে। আলিগড় থেকে পুনের ফিল্ম ইন্সটিটিউট, মুম্বাই থেকে কলকাতা, জেএনইউ-এর তাণ্ডবের প্রতিবাদে সোচ্চার দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও।

রোববার রাতের ওই হামলায় মাথায় আঘাত পেয়েছেন জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (জেএনইউএসইউ)-র সভাপতি ঐশী ঘোষ। জানা গেছে, আড়াই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলা এই হামলায় আহত হয়েছেন আরও অনেকে। তবে ঠিক কতজন আহত হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। বেশ কয়েকজনকে আহতাবস্থায় এইমস-এর ট্রমা কেয়ার সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে জেএনইউএসইউ দাবি করে, হামলার নেপথ্যে রয়েছে বিজেপির ছাত্র সংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি)। ওই বিবৃতিতে বলা হয়, শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি হামলার টার্গেট ছিলেন কয়েকজনপ্রফেসরও।

জেএনইউএসইউ জানায়, পুলিশের উপস্থিতিতেই মুখোশ পরে লাঠি, রড, হাতুড়ি নিয়ে ঘুরছে এবিভিপির কর্মীরা। তারা ইট ছোড়ে, দেয়াল টপকে ক্যাম্পাসে ঢোকে এবং হোস্টেলে ঢুকে শিক্ষার্থীদের পেটায়। এবিভিপি’র হামলায় হয়েছেন কয়েকজন অধ্যাপকও। মাথায় আঘাত পান জেএনইউএসইউ-র সভাপতি ঐশী ঘোষ। এবিভিপি’র গুন্ডাদের তাড়া খেয়ে নিজেদের বাঁচানোর চেষ্টা করছে ছাত্রছাত্রীরা। পুলিশ এই অপরাধে জড়িত, তারা হুকুম নিচ্ছে সংঘ সমর্থক প্রফেসরদের কাছ থেকে, শিক্ষার্থীদের ভারত মাতা কি জয় স্লোগান দিতে বাধ্য করছে।

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে এবিভিপি। পাল্টা এক বিবৃতিতে এবিভিপি’র সভাপতি নিধি ত্রিপাঠি জানিয়েছেন, ‘নক্সালপন্থীরা’ হোস্টেলে ঢুকে ভাংচুর চালিয়েছে, এবং ছাত্রছাত্রীদের লোহার রড দিয়ে আঘাত করেছে।

এদিকে জেএনইউ-এ ওই হামলার পর নিন্দা জানিয়েছেন ভারতের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর নেতারা। হামলার প্রতিক্রিয়ায় এক টুইট বার্তায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, এই জঘন্য কাজের বর্ণনা দেয়ার ভাষা নেই। এটি আমাদের গণতন্ত্রের লজ্জা।

কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী বলেছেন, জেএনইউ-এর শিক্ষার্থী এবং অধ্যাপকদের ওপর মুখোশধারী গুণ্ডাদের নৃশংস হামলা, যার ফলে গুরুতর আহত হয়েছেন অনেকে, তা স্তম্ভিত করে দেয়ার মতো। আমাদের দেশের ফ্যাসিবাদী শাসকরা আমাদের সাহসী ছাত্রদের কণ্ঠকে ভয় পেয়েছে। জেএনইউ-এ আজকের হামলা সেই ভয়ের প্রতিচ্ছবি।

অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের যাদবপুর ও প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও জেএনইউ-এর পাশে দাঁড়িয়েছে আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়, পুনের ফিল্ম ইন্সটিটিউটসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ওই হামলার প্রতিবাদে মোমবাতি মিছিল করেছে আলিগড়ের শিক্ষার্থীরা

RTVPLUS