logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ৪ মাঘ ১৪২৭

দিল্লির আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডে নিহত বেড়ে ৪৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৪৫ | আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৫:০৪
দিল্লি, আগুন
সংগৃহীত
ভারতের দিল্লির রানি ঝাঁসি রোডের আনাজ মান্ডি এলাকার একটি ছয়তলা ভবনে রোববার ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩ হয়েছে।

এ পর্যন্ত ভবনটি থেকে ৫৯ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও অনেকে ভবনটির ভেতরে আছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

একাধিক সূত্রের বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ১৫টি দমকলের গাড়ি আগুন নেভাতে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা হয়।

সরঞ্জাম নিয়ে ঘটনাস্থলে  যাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা

এদিন ভোর পাঁচটা ২২ মিনিটে একটি ফোনকল থেকে এই আগুনের খবর পাওয়ার পর ৩০টি দমকলের টেন্ডার ঘটনাস্থলের দিকে ছুটি যায়।

দমকলের উপপ্রধান কর্মকর্তা সুনিল চৌধুরি গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় বলেন, ৬০০ বর্গফুটের এই ভবনের ভেতরের দিকটা অন্ধকারাচ্ছন্ন।

তিনি বলেন, এটি একটি ফ্যাক্টরি। এখানে স্কুল ব্যাগ, বোতল ও অন্যান্য জিনিস রাখা হতো। ইতোমধ্যে আগুন আমাদের নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে।

দমকলের উপপ্রধান কর্মকর্তা সুনিল চৌধুরি গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলছেন

এই অগ্নিকাণ্ডের শিকারদের বেশির ভাগই ফ্যাক্টরিটির শ্রমিক। আগুন ছড়িয়ে পড়ার সময় তারা ঘুমিয়ে ছিলেন। আশেপাশের লোকজন দ্রুত ছুটে যান ঘটনাস্থলে।

দমকলকর্মীরা জানান, ভবনটির ভেতরে আটকা পড়া অনেক মানুষকে উদ্ধারের পর আরএমএল হসপিটাল, এলএনজেপি ও হিন্দু রাও হসপিটালে নেয়া যাওয়া হয়।

এলএনজেপির মেডিকেল সুপারিন্টেনডেন্ট ড. কিশোর সিং বলেন, অগ্নিকাণ্ডের শিকার ৩৪ জনকে মৃতাবস্থায় এখানে আনা হয়। ধোঁয়ার কারণে শ্বাসকষ্টে ভুগে তারা মারা গেছেন।

ভবনটির ভেতরে উদ্ধারকাজ করছেন উদ্ধারকর্মীরা

তিনি জানান, আহতাবস্থায় ১৫ জনকে আনা হয়। তাদের মধ্যে ৯ জনকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। অন্যদের অবস্থা আশঙ্কাজনক নয়।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এই দুর্ঘটনায় টুইটারে শোক জানিয়েছেন। ভুক্তভোগীদেরকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাসও দিয়েছেন তারা।

অরবিন্দ কেজরিওয়াল ঘটনাস্থল পরিদর্শনের সময় জানান, এই অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের পরিবারকে দশ লাখ রুপি করে ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে। এছাড়া আহতদের পরিবারকে এক লাখ রুপি করে দেয়া হবে।

ঘটনাস্থলে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল

দিল্লি সরকার এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তের আদেশ দিয়েছে এবং সাত দিনের মধ্যে বিস্তারিত প্রতিবেদন চেয়েছে। এই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

কে/সি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ
  • আন্তর্জাতিক এর পাঠক প্রিয়