logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শ্রীলঙ্কায় মুসলিম ভোটারদের বহনকারী বাসে বন্দুক হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ১১:০৯ | আপডেট : ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৪২
Gunmen fire on buses carrying Muslim Sri Lankan voters
নির্বাচন ঘিরে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে শ্রীলঙ্কার নিরাপত্তা বাহিনী (ছবি সংগৃহীত)
শ্রীলঙ্কার উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে সংখ্যালঘু মুসলিম ভোটারদের বহনকারী বাসে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটেছে। আজ শনিবার দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচন চলাকালে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ।

এ ঘটনায় হতাহতের কোনও খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কার কর্মকর্তারা। তবে একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, শতাধিক গাড়ি বহরের পথরোধ করতে হামলাকারীরা রাস্তায় টায়ার পোড়ায়।

রাজধানী কলম্বোর ২৪০ কিলোমিটার উত্তরে তান্তিরিমালের একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, বন্দুকধারীরা গুলি ছোড়ে এবং পাথরও ছোড়ে। দুটি বাস ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কিন্তু আমরা এখনও হতাহতের কোনও খবর পাইনি।

পুলিশ বলছে, উপকূলীয় শহর পুত্তালাম থেকে পার্শ্ববর্তী মানার জেলায় যাচ্ছিলেন ওই মুসলিম ভোটাররা। তারা মানার জেলার ভোটার হিসেবে নিবন্ধিত।

পরে পুলিশের টিম গিয়ে রাস্তার প্রতিবন্ধকতা সরিয়ে দেয় এবং বাসের যাত্রীদের ভোটকেন্দ্র পর্যন্ত পাহারা দিয়ে নিয়ে যায়। তামিল অধ্যুষিত জাফনায় পুলিশ ও সেনাবাহিনীর উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যেই এই হামলার ঘটনা ঘটলো। সেখানকার বাসিন্দাদের অভিযোগ নির্বাচনকে সামনের রেখে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে সেনাবাহিনী।

স্বাধীন নির্বাচন কমিশনকে পুলিশ জানিয়েছে, সেনাবাহিনী অবৈধভাবে রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। এর ফলে বাসিন্দারা ভোটকেন্দ্রে অবাধে যাতায়াত করার ক্ষেত্রে অসুবিধায় পড়বেন।

পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, একটি জাতীয় নির্বাচনের সময় সেনাবাহিনী রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে এমন খবরে, পুলিশ তা সরিয়ে দিয়েছে। এছাড়া কোনও ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না করার ব্যাপারে স্থানীয় সেনা কমান্ডারদেরও সতর্ক করে দিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, আজ শনিবার সকাল থেকে শ্রীলঙ্কার অষ্টম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। এবারের নির্বাচনে মোট ৩৫ প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন। তবে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে ক্ষমতাসীন ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির (ইউএনপি) সাজিথ প্রেমাদাসা এবং বিরোধী দল শ্রীলঙ্কা পিপলস ফ্রন্টের (এসএলপিপি) গোটাবায়া রাজাপক্ষের মধ্যে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ
  • আন্তর্জাতিক এর পাঠক প্রিয়