logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬

মানবপাচারের অভিযোগে ব্রাজিলে সাত বাংলাদেশি আটক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০১ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৪৯ | আপডেট : ০১ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:৪০
Seven Bangladeshis detained in Brazil for human trafficking
মার্কিন অভিবাসন বিভাগের ওয়েবসাইট থেকে স্ক্রিনশট নেয়া
মানবপাচারের অভিযোগে ব্রাজিলে এক ব্যবসায়ীসহ সাত বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে। ব্রাজিল ও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার সমন্বিত অভিযানে তাদের আটক করা হয়।

ব্রাজিল পুলিশের হাতে আটক থাকা ওই ব্যবসায়ীর নাম সাইফুল্লাহ আল মামুন ওরফে সাইফুল আল মামুন (৩২)। তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস আদালতে মানবপাচার ও ষড়যন্ত্রের আটটি অভিযোগে চার্জ গঠন করা হয়েছে।

ব্রাজিল পুলিশের হাতে আটক থাকা অন্য ছয় বাংলাদেশি হলেন- সাইফুল ইসলাম (৩২), তামুর খালিদ (৩১), নজরুল ইসলাম (৪১), মোহাম্মদ ইফরান চৌধুরী (৩৯), মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন (২৮) ও মো. বুলবুল হোসাইন (৩৬)।

অভিযুক্তদের ধরতে সমন্বিত অভিযান চালায় যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের সংস্থাগুলো। মূলত মানবপাচারকারী নেটওয়ার্ক তথা জননিরাপত্তা ঝুঁকি ও গুরুতর মানবিক উদ্বেগ সৃষ্টি প্রতিরোধ করতে এই ধরনের অভিযান চালায় তারা।

---------------------------------------------------------------
আরো পড়ুন: আল-বাগদাদীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করলো আইএস
---------------------------------------------------------------

আদালতে দোষী প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত আসামিরা নির্দোষ ও তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগগুলো শুধু অভিযোগ হিসেবেই বিবেচিত হবে। টেক্সাস আদালতে দাখিলকৃত অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, মামুনের বিরুদ্ধে অভিযোগ হচ্ছে- সে বিদেশি নাগরিকদের সাও পাওলোতে এনে রেখেছে। মানবপাচারকারী গোষ্ঠীর মাধ্যমে ব্রাজিল, পেরু, ইকুয়ডোর, কলম্বিয়া, পানামা, কোস্টারিকা, নিকারাগুয়ে, হন্ডুরাস, গুয়েতেমালা ও মেক্সিকো হয়ে তাদের যুক্তরাষ্ট্রের প্রবেশের সুযোগ করে দেয় সে।

সেখানে আরও বলা হয়, বিদেশি নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে পাচারের জন্য অভিযুক্ত মামুন ও তার দুই সহকারীকে মেক্সিকো, মধ্য আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা, বাংলাদেশ বা অন্য কোথাও অর্থ পরিশোধ করা হবে।

মামুনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিলের পর মার্কিন বিচার বিভাগের সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ব্রায়ান এ বেনজকোভস্কি বলেন, আমাদের আইনি অভিবাসন ব্যবস্থাকে যারা ব্যর্থ করার চেষ্টা করে দেশের মানুষকে নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ফেলে তাদের বিচারের আওতায় আনতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়