সিঙ্গাপুরে স্ত্রীকে বিদায় দিতে প্লেনের টিকিট কেটে স্বামী গ্রেপ্তার

প্রকাশ | ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:১৭ | আপডেট: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:২৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
সিঙ্গাপুরের চাঙ্গি বিমানবন্দর

বিশ্বের সেরা বিমানবন্দরগুলোর তালিকায় প্রায়ই সিঙ্গাপুরের চাঙ্গি বিমানবন্দরের নাম উঠে আসে। তবে  এবার স্ত্রীকে বিদায় দিতে প্লেনের টিকিট কিনে এক ব্যক্তি গ্রেপ্তার হওয়ার পর খবরের শিরোনাম হয়েছে চাঙ্গি বিমানবন্দর। খবর সিএনএনের।

ওই ব্যক্তি গ্রেপ্তার হওয়ার পর বোর্ডিং পাসের ‘অপব্যবহার’ না করতে বাসিন্দাদের সতর্ক করে দিয়েছে সিঙ্গাপুরের পুলিশ। বোর্ডিং পাসের অপব্যবহার অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হয় সিঙ্গাপুরে। কেননা সেখানে ট্রানজিট এরিয়াকে ‘সুরক্ষিত স্থান’ মনে করা হয়।

উড্ডয়নের ইচ্ছা ছাড়া যে কেউ চাঙ্গি বিমানবন্দরের গেট-সাইড এলাকায় প্রবেশ করবে সিঙ্গাপুরের অবকাঠামো সুরক্ষা আইনের আওতায় তাকে বিচারের মুখোমুখি দাঁড় করানো যাবে। সেক্ষেত্রে ওই ব্যক্তির ২০ হাজার সিঙ্গাপুর ডলার বা সর্বোচ্চ দুই বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে। চলতি বছরের প্রথম আট মাসে এই আইনের আওতায় ৩৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

-------------------------------------------------------------------------
আরো পড়ুন: পশ্চিমবঙ্গে মুসলিমদের নিয়েই হবে এনআরসি: দিলীপ ঘোষ
-------------------------------------------------------------------------

পুলিশ বলছে, ২৭ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি তার স্ত্রীকে গেট পর্যন্ত এগিয়ে এবং ‘সিঙ্গাপুর না ছাড়ার উদ্দেশ্যে’ টিকিট কিনেছিল। ফেসবুকে এক পোস্টে তারা জানিয়েছে, নিজেদের পরবর্তী গন্তব্যে যাওয়ার জন্যই যাত্রীদের বোর্ডিং পাস নিয়ে ট্রানজিট এরিয়ায় প্রবেশ করা উচিত।

গত এপ্রিলে যখন চাঙ্গি বিমানবন্দরের নতুন জুয়েল টার্মিনাল খোলা হয় তখন তা বিশ্বজুড়ে শিরোনাম হয়েছিল। কারণ সেখানে ৪০ মিটারের একটি জলপ্রপাত রয়েছে, যা বিশ্বের সবচেয়ে বড় ইন্ডোর জলপ্রপাত। এছাড়া ১৪ হাজার স্কয়ার মিটারের ক্যানোপি পার্ক, একটি সাসপেনশন ব্রিজ, টপিয়ারি ও গোলকধাঁধা এবং তিন হাজার গাছ ও ৬০ হাজার গুল্ম জাতীয় গাছ নিয়ে এশিয়ার বৃহত্তম ইন্ডোর বাগান রয়েছে।

এর আগে ২০১৬ সালে চাঙ্গি বিমানবন্দরে ১৮ দিন কাটানোর পর এক মালয়েশীয়কে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই সময় সেই ব্যক্তি বোর্ডিং পাস নকল করে বিমানবন্দরের নয়টি লাউঞ্জে প্রবেশের চেষ্টা করেছিল। ওই ঘটনায় কয়েকদিন পর চাঙ্গির শপিং মলে প্রবেশের ফ্লেক্সিবল টিকিট বুক করে এক জুটি গ্রেপ্তার হন। সেখান থেকে তারা একটি আইফোন সেভেন কেনেন।

এছাড়া আরও অনেক যাত্রী রিফান্ডেবল টিকিট বুক করে থাকেন। ফলে বিমানবন্দরে সময় কাটিয়ে বিমান উড্ডয়নের আগে ওই টিকিট বাতিল করে দেন তারা।

এ/ এমকে