logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬

এটি কোনও ঈদ নয়, এটি শোক: কাশ্মীরি যুবক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১১ আগস্ট ২০১৯, ২২:৫৭ | আপডেট : ১১ আগস্ট ২০১৯, ২৩:০৭
কাশ্মীর, ভারত
শ্রীনগরে এখনও অস্ত্রধারী সৈন্যের ব্যাপক উপস্থিতি। ছবি: বিবিসি বাংলা
টানা পাঁচদিন অবরুদ্ধ থাকার ভারত শাসিত কাশ্মীরের মানুষ শনিবার বিকেলে কিছুটা হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছিলেন। ঈদের কেনাকাটা করার জন্য শনিবার কারফিউ কিছুটা শিথিল করা হয়।

bestelectronics
শ্রীনগরে শাটারও ওঠে কিছু কিছু দোকানের। বেশকিছু মানুষ রাস্তায় বের হন শুধু ঈদের উপহারই নয়, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতেও।

কুরবানির পশু বেচতে শ্রীনগরের একটি রাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকা এক কাশ্মীরি যুবক কণ্ঠে তীব্র ক্ষোভ ও হতাশা নিয়ে নিয়ে বিবিসির সংবাদদাতা দিলনওয়াজ পাশাকে বলেন, এটি কোনও ঈদ নয়, এটি শোক।

তিনি বলেন, গত দুদিন আমরা তেমন কিছু করিনি। ঈদের পর আমরা ৩৭০ অনুচ্ছেদ ফিরিয়ে আনবো। এটা কাশ্মীর। এটা আমাদের ভূমি।

তিনি আরও বলেন, যখনই মুসলমানদের কোনও উৎসব আসে, তখনই গণ্ডগোল হয়। ভারতকে বুঝতে হবে এটি আমাদের জন্য আত্মত্যাগের দিন। তাই আত্মত্যাগ করবো। দুদিন পর দেখবেন এখানে কী হয়।

কুরবানির জন্য শ্রীনগরে ভেড়া বিক্রি করতে এসেছেন দুই কাশ্মীরি। ছবি: বিবিসি বাংলা

ঈদের আগে কাশ্মীরে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তাতে গ্রামের বহু খামারি এবার শহরে গিয়ে কুরবানির পশু বিক্রি করতে পারছেন না। তারা বিরাট সঙ্কটে পড়েছেন।

শ্রীনগরের রাস্তায় এক খামারি বললেন, এবার কোনও ব্যবসা নেই। আমার মনে হয় না যে এবার কোনও পশু বিক্রি করতে পারবো। সকাল থেকে না খেয়ে আছি।

শনিবার কারফিউ শিথিল করার পর কিছু ফেরিওয়ালা ঠেলাগাড়িতে ফল, সবজি সাজিয়ে ফেরি করতে বেরিয়ে পড়েন।

তাদের ছবি তোলার সময় এক যুবক পাশে এসে বলেন, বাইরের বিশ্বকে আপনার কী দেখাতে চান যে শ্রীনগর প্রায় স্বাভাবিক? কাশ্মীরিরা ফল ও সবজি কেনাবেচা করছে?

ঠিক তখনই একটি পাথরের টুকরো এসে পড়ে। তারপর আরও পাথর এসে পড়তে থাকে। ফেরিওয়ালারা দ্রুত তাদের ঠেলাগাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়।

শনিবার বিকেলে কারফিউ শিথিল করায় কিছু ফেরিওয়ালা ফল সবজি নিয়ে বেরিয়ে পড়েন। ছবি: বিবিসি বাংলা

তবে সৈন্যদের ব্যাপক উপস্থিতির ভেতরে শনিবার কিছু কিছু জায়গায় বেশ মানুষ জড় হয়। অনেক গাড়ি বের হয়। শ্রীনগরে এখনও অস্ত্রধারী সৈন্যের ব্যাপক উপস্থিতি।

শ্রীনগরে এখন চালু আছে শুধু জে অ্যান্ড কে (জম্মু ও কাশ্মীর) ব্যাংকের এটিএম। অন্য কোনও সরকারি বা বেসরকারি ব্যাংকের এটিএম কাজ করছে না, করলেও টাকা নেই।

এদিকে দিল্লিতে বিবিসি বাংলার প্রতিনিধি শুভজ্যোতি ঘোষ জানান, ঈদুল আজহার কথা বিবেচনা করে শনিবার কারফিউ কিছু শিথিল করা হয়।

কিন্তু গত দুদিনে আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় বিক্ষোভের খবরাখবর, ফুটেজ ও ছবি প্রচার হওয়ার ফলে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ আবার তাদের অবস্থান শক্ত করছে বলে জানান তিনি।

কে/এসএস

bestelectronics bestelectronics
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়