logo
  • ঢাকা রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬

হাজার রুপির ‘আধুনিক’ গুহায় মোদির ধ্যান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ২০ মে ২০১৯, ১৫:৩৭ | আপডেট : ২০ মে ২০১৯, ১৫:৪০
ছবি: সংগৃহীত
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রোববার শেষ ধাপের লোকসভা নির্বাচনের আগে উত্তরাখণ্ডে কেদারনাথের একটি গুহায় ধ্যান করে সবার নজর কেড়েছেন। সব রকমের সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত আধুনিক ওই গুহার প্রতিদিনের ভাড়া ৯৯০ রুপি। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

কেদারনাথে ধ্যানকে জনপ্রিয় করার অংশ হিসেবে গত বছর গুহা তৈরি করা হয়। গঢ়বাল মণ্ডল বিকাশ নিগম (জিএমভিএন) কর্তৃপক্ষ গুহায় ধ্যান করার মূল্যও কমায় এবং বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করে।

যে গুহায় বসে মোদি ধ্যান করেছেন সেই রুদ্র ধ্যান গুহা ভারতের প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শেই তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জিএমভিএন। ওই গুহাটি কেদারনাথ মন্দির থেকে এক কিলোমিটার উপরে বাঁ দিকের একটি পাহাড়ের উপর অবস্থিত।

আগে এই গুহার ভাড়া দিনপ্রতি তিন হাজার রুপি ছিল। কিন্তু গত বছর কম ভাড়াটে পাওয়ায় নতুন মূল্য ৯৯০ রুপি নির্ধারণ করা হয়।

জিএমভিএন-র জেনারেল ম্যানেজার বিএল রানা বলেছেন, গত বছর এই গুহার চালুর সময় পর্যটকদের কাছ থেকে খুব একটা সাড়া পাওয়া যায়নি। তখন বেশ শীতও পড়েছিল। তাছাড়া আমরা বুঝতে পেরেছিলাম যে, ভাড়া খুব বেশি হয়ে গেছে।

আরও একটা কারণে গুহায় পর্যটক কমে গিয়েছিল, আর তা হচ্ছে- কমপক্ষে তিনদিনের জন্য গুহাটিকে ভাড়া করা বাধ্যতামূলক ছিল। তবে চলতি বছর থেকে এই নিয়ম তুলে দিয়েছে নিগম কর্তৃপক্ষ।

ওই গুহাটি প্রাকৃতিক হলেও এটির বাইরের দেয়াল কৃত্রিমভাবে পাথর দিয়ে তৈরি করা। গুহায় রয়েছে একটি শক্তপোক্ত কাঠের দরজা। এছাড়া বিদ্যুৎ, খাবার পানি এবং একটি ওয়াশরুমও রয়েছে। তাছাড়া ওই গুহা ভাড়া করা ব্যক্তিকে তার পছন্দ অনুযায়ী সকাল, দুপুর, রাতের খাবার ও দিনে দুইবার চা দেয়া হয়।

আর গুহার ভেতর একটি কলিংবেলও লাগানো রয়েছে। ওই কলিংবেলে চাপ দিলেই দিনের ২৪ ঘণ্টাই সেবা দিতে প্রস্তুত রয়েছে একজন স্টাফ।

এদিকে এমন ‘আধুনিক’ গুহায় মোদির ধ্যানের খবর সামনে আসতে ব্যাঙ্গ-বিদ্রূপের ঝড় উঠেছে। এছাড়া বিপাকে পড়েছে ভারতের নির্বাচন কমিশনও। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি দাবি করেছেন, গুহার ভেতর ধ্যানের ছবি প্রকাশ করে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন মোদি। তবে মোদির দাবি, তিনি নির্বাচন কমিশনের অনুমতিই ছবি প্রকাশ করেছেন।

এ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়