• ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

বিজেপির ইশতেহার ‘বিচ্ছিন্ন ব্যক্তির কণ্ঠস্বর’: রাহুল গান্ধী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৫৭
ছবি: সংগৃহীত
আসন্ন লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে গতকাল সোমবার ইশতেহার প্রকাশ করেছে বিজেপি। আজ মঙ্গলবার কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী বিজেপিকে এক হাত নিয়েছেন। নাম উল্লেখ না করে টুইটে নরেন্দ্র মোদিকে তুলোধনা করেন কংগ্রেস সভাপতি। তিনি লেখেন, ‘এক বিচ্ছিন্ন ব্যক্তির কণ্ঠস্বরই’ প্রতিফলিত হয়েছে ওই ইশতেহারে। তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, বদ্ধ ঘরে বসে তৈরি তাদের ইশতেহার। অদূরদৃষ্টিসম্পন্ন এবং দাম্ভিকতাই প্রকাশ পেয়েছে বিজেপির ইশতেহারে।

whirpool
গতকাল মোদি থেকে রাজনাথ সবাই দাবি করেছেন, গত কয়েক মাস ধরে দীর্ঘ আলোচনার মাধ্যমেই দেশের ‘মন কি বাত’-কে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। অরুণ জেটলির পাল্টা অভিযোগ ছিল, কংগ্রেসের ইশতেহার তৈরি হয়েছে টুকরো টুকরো ভাবনায়। তার পাল্টা জবাবে রাহুল বলেন, দীর্ঘ আলোচনার মধ্য দিয়ে তৈরি হয়েছে কংগ্রেসের ইশতেহার। জায়গা পেয়েছে কয়েক লাখ মানুষের মতামত।

ইশতেহার প্রকাশের সময় রাজনাথ সিং প্রথমেই স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন, সন্ত্রাসবাদকে কোনোভাবেই প্রশয় দেয়া হবে না। জাতীয়তাবাদই হবে মূলমন্ত্র। মোদি বলেন, জাতীয়তাবাদ আমাদের প্রেরণা, গরিবের ক্ষমতায়ন আমাদের লক্ষ্য এবং সুশাসন আমাদের মন্ত্রণা।

এ প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কটাক্ষ করে বলেন, সুশাসন আসবে বলছেন, আপনিই তো দুঃশাসন! কংগ্রেস তাদের ইশতেহারে ২০ শতাংশ গরিবদের বছরে ৭২ হাজার রুপি দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। কংগ্রেসের ‘ন্যায়’-এর পাল্টা এদিন বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হয়, কৃষক সম্মান নিধি-র আওতায় প্রত্যেক কৃষককে বছরে ৬ হাজার রুপি দেয়া হবে। এর আগে ২ হেক্টর বা তার কম কৃষিজমি থাকলে এই সুবিধা পাওয়া যেত। কংগ্রেস এবং বিজেপি তাদের দুই ইশতেহারে কর্মসংস্থান, পরিকাঠামোগত উন্নয়ন এবং দারিদ্র দূরীকরণের প্রতিশ্রুতির কম-বেশি জায়গা পেয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়