logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নিউজিল্যান্ডে বন্দুকের লাইসেন্স পাওয়া এতো সহজ!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৯ মার্চ ২০১৯, ২১:৩৭
ছবি: নিউজিল্যান্ডের গণমাধ্যম স্টাফ

নিউজিল্যান্ডের সাউথ আইল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরের আল নূর এবং লিনউড মসজিদে স্থানীয় সময় গত শুক্রবার একাধিক সেমি-অটোমেটিক অস্ত্র ব্যবহার করে হামলা চালিয়ে ৫০ জন নিহত এবং ৫০ জন আহত করেছেন অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত ২৮ বছর বয়সী ব্রেনটন ট্যারেন্ট। এই হামলার ঘটনায় দেশটিতে প্রচলিত বন্দুকের লাইসেন্স প্রদানের শর্ত এবং অস্ত্র আইন নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

সোমবার প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে নিউজিল্যান্ডের বন্দুকের লাইসেন্স প্রদানের শর্ত এবং অস্ত্র আইন সম্পর্কিত বিস্তারিত তুলে ধরেছে দেশটির শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম স্টাফ।

দেশটির একজন নাগরিকের বয়স ১৬ বছর হলেই তিনি আবেদনের করে একটি রাইফেল বা শটগান পেতে এবং ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য তাকে স্থানীয় পুলিশ স্টেশনে ফি হিসেবে ১২৬.৫০ ডলার, পাসপোর্ট সাইজের দুটি ছবি এবং পরিচয়ের প্রমাণস্বরূপ তিনটি ডকুমেন্ট জমা দিয়ে লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হয়।

এরপর পুলিশ তার ব্যাকগ্রাউন্ড সম্পর্কে জানতে প্রাথমিক তদন্ত করে তাকে লাইসেন্স দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। যদি কেউ লাইসেন্স না পায়, তবে তাকে ফায়ারআর্মস সেফটি কোর্সে অংশগ্রহণ করতে হয়। এতে নিউজিল্যান্ড সেফটি কাউন্সিলের নির্দেশকরা বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে থাকে। চলতি মাসের শুরু থেকে এটা শুরু হয়েছে।

এই কোর্সের থিওরি টেস্টে উত্তীর্ণ হলে একটি প্র্যাকটিক্যাল সেশনে অংশগ্রহণ করতে হয়। এরপর অংশগ্রহণকারীর পরিচিত কারও সাক্ষাৎকার নেয়া হয়। তারা যদি বলেন তিনি কোনও ধরনের সহিংস কর্মকাণ্ডে যুক্ত ছিলেন না, তবে তাকে ১০ বছরের জন্য ফায়ারআর্মসের লাইসেন্স দেয়া হয়।

দেশটির অস্ত্র আইন অনুসারে, যে অস্ত্রগুলো থেকে বুলেট বা বিস্ফোরক দ্রব্য ছোড়া যায়, সেগুলোকে ফায়ারআর্মস বলা হয়। এভাবেই ট্যারেন্ট সেনাবাহিনীর সদস্যদের ব্যবহার করা একাধিক সেমি-অটোমেটিক অস্ত্র কিনতে সক্ষম হন বলে জানিয়েছে নিউজিল্যান্ডে শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যমটি।

কে/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ
  • আন্তর্জাতিক এর পাঠক প্রিয়