• ঢাকা রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২ পৌষ ১৪২৬

সৌদি যুবরাজের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের তদন্ত শুরু আর্জেন্টিনার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ২৭ নভেম্বর ২০১৮, ১১:০৩ | আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০১৮, ১১:১৩
ছবি: সংগৃহীত

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের বিরুদ্ধে ফৌজদারি অপরাধের অভিযোগ গঠন করা হবে কিনা তা নির্ধারণে তদন্ত শুরু করেছে আর্জেন্টিনা। সোমবার আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) জানিয়েছে, ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের হামলায় তার ভূমিকার কারণে ওই তদন্ত করা হবে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের একটি প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে মিডলইস্টআই জানিয়েছে, সৌদি আরব আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ আইন লঙ্ঘন হয়েছে এইচআরডব্লিউ এবং আর্জেন্টিনার একজন কেন্দ্রীয় কৌঁসুলি এমন অভিযোগ দায়ের করার পর এই তদন্ত শুরু হলো।

চলতি সপ্তাহের শেষদিকে আর্জেন্টিনায় জি-২০ সম্মেলনে সৌদি যুবরাজের অংশগ্রহণের ঠিক আগ মুহূর্তে তার বিরুদ্ধে এ ধরনের তদন্ত শুরু করা হলো। যদিও দক্ষিণ আমেরিকার দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিন সালমানকে গ্রেপ্তার করার সম্ভাবনা ‘একদমই নেই’।

এইচআরডব্লিউ নির্বাহী পরিচালক কেনেথ রথ এক বিবৃতিতে বলেছেন, মোহাম্মদ বিন সালমানের জানা উচিত যে যদি তিনি আর্জেন্টিনা পা রাখেন তাহলে ফৌজদারি তদন্তের মুখোমুখি হতে পারেন।

এমন এক সময় সৌদি যুবরাজের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করলো বুয়েন্স আয়ার্স যখন সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে ভূমিকার জন্য তিনি ব্যাপক চাপে রয়েছেন।

আর্জেন্টিনার আইন অনুযায়ী, দেশটির বাইরে সংঘটিত কোনও অপরাধের বিচার করার বিধান রয়েছে। সেক্ষেত্রে আর্জেন্টিনার বাইরে অন্য কোনও স্বাধীন দেশে মানবাধিকার লঙ্ঘন, নিপীড়নের মতো বিষয় ঘটলে সেটি বিচার করতে পারে  আর্জেন্টিনা।

মূলত ১৯৭০ ও ১৯৮০-র দশকে আর্জেন্টিনায় সেনা শাসনের সময় হাজার হাজার আর্জেন্টাইন নিখোঁজ হওয়ার পর দেশটি তাদের আইনে ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে আসে।

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের তথ্যানুযায়ী, ২০১৫ সালে ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট হামলা শুরু করার পর এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার মানুষ নিহত হয়েছে।

আরও পড়ুন :

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়