Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৭ কার্তিক ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ২১ আগস্ট ২০২১, ১৭:০৮
আপডেট : ২১ আগস্ট ২০২১, ১৭:২৩

আফগানের ৮০ হাজার কোটি টাকা মার্কিনিদের হাতে

আফগানের ৮০ হাজার কোটি টাকা মার্কিনিদের হাতে
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন - সংগৃহীত ছবি

আফগানিস্তানের মসনদ ফের তালেবানদের দখলে যাওয়ার পর দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাড়ে নয়শ কোটি ডলারের সম্পদ জব্দ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ ৮০ হাজার ৬০০ কোটি টাকার বেশি।

আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করলেও যুক্তরাষ্ট্রের এই কাণ্ডে নিজ দেশের প্রায় হাজার কোটি ডলার হাতে পাচ্ছে না তালেবান। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে আলজাজিরা।

আলজাজিরার প্রতিবেদনে মার্কিন প্রশাসনের এক কর্মকর্তার বরাতে জানানো হয়, এখনও মার্কিন রাজস্ব দপ্তরের নিষেধাজ্ঞার তালিকায় নাম রয়েছে তালেবানের। যার কারণে তারা আফগানিস্তানে সরকার গঠন করলেও যুক্তরাষ্ট্রে থাকা আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কোনো সম্পদ বা সম্পত্তির নাগাল পাবে না।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত প্রধান আজমল আহমাদি এ প্রসঙ্গে টুইট করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, শুক্রবার জানতে পেরেছিলাম, তালেবানের হাতে অর্থ যাওয়া ঠেকাতে ডলারের চালান বন্ধ করে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রায় ৯৫০ কোটি ডলারের সম্পদ রয়েছে সেখানে। যার উল্লেখযোগ্য অংশ রয়েছে নিউইয়র্ক ফেডারেল রিজার্ভ ও যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর অ্যাকাউন্টে।

যদিও আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অর্থ আটকে দেয়ার বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি মার্কিন রাজস্ব দপ্তর।

প্রশাসনের এক কর্মকর্তা এক বিবৃতিতে সংবাদপত্রকে বলেন, ওয়াশিংটন তালেবানদের তহবিল অ্যাক্সেস করতে দেবে না। ফলে আফগান সরকারের যুক্তরাষ্ট্রে যে কোনো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সম্পদ তালেবানদের হাতে পৌঁছাবে না।

এর আগে ১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ পর্যন্ত তালেবানি শাসনামলে আফগানিস্তানে নারীদের মুখ, চুলসহ সম্পূর্ণ দেহ ঢাকা বোরকা পরা বাধ্যতামূলক ছিল। মেয়েদের বয়স ১০ বছরের বেশি হলেই স্কুলে যাওয়া ছিল নিষিদ্ধ। শরিয়া আইনের নামে তারা চালু করেছিল দোররা ও পাথর ছুড়ে হত্যার মতো ভয়ঙ্কর সব শাস্তি।

২০০১ সালে মার্কিন বাহিনী তালেবানকে উৎখাত করেছিল আফিগানিস্তানকে সন্ত্রাসবাদ থেকে মুক্ত করার জন্য। কিন্তু দুই দশকেও সেখানে শান্তি আসেনি।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন গত এপ্রিলে ঘোষণা দেন, দুই দশকের যুদ্ধের অবসান ঘটিয়ে তার দেশে সেনাবাহিনী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পুরোপুরি আফগানিস্তান ছেড়ে যাবে। সে সুযোগটিই কাজে লাগায় তালেবান। মে মাসে শুরু হয় তাদের হামলা।

অত্যন্ত দ্রুতগতিতে দেশটির অধিকাংশ প্রাদেশিক রাজধানীর দখল নিয়ে রোববার কাবুলে প্রবেশ করে তালেবান যোদ্ধারা। এরপর যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশের দূতাবাস খালি করে কর্মীদের সরিয়ে নেয়া শুরু হয়।

বিভিন্ন প্রাদেশিক রাজধানীর পতনের পর যারা আশ্রয়ের আশায় কাবুলে এসেছিলেন, তারা সেখান থেকেও পালাতে শুরু করেন। কিন্তু পাকিস্তান সীমান্ত বন্ধ করে রাখায় বহু মানুষ ভিড় করেন কাবুল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। সূত্র : এএনআই

টিএস/পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS