Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮

মিনিটে ১৬ বার ‘স্যার স্যার’ করেন ভারতের আমলারা

মিনিটে ১৬ বার ‘স্যার স্যার’ করেন ভারতের আমলারা
ফাইলপত্র হাতে ভারতের সচিবলায়ের এক কর্মী - সংগৃহীত ছবি

ঔপনিবেশিক শাসনামলের যুগ শেষ হলেও ভারতীয় আমলাতন্ত্রে টিকে রয়েছে বেশ কিছু প্রথা। তার মধ্যে একটি প্রথা হচ্ছে অতিরিক্ত ‘স্যার’ বলা। এই শব্দটা এক–দুবার নয়, মিনিটে ১৬ বার বলেন ভারতের একজন আমলা। এসব তথ্য জনসমক্ষে এনেছেন ভারতের অর্থনীতিবিদ কৌশিক বসু।

ভারতের আমলাতন্ত্রের বেশ কিছু প্রথা নিয়ে কথা বলেছেন কৌশিক বসু। লন্ডন স্কুল অব ইকনোমিকস থেকে পিএইচডি শেষ করে তিনি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল ইউনিভার্সিটিতে অর্থনীতি বিষয়ে অধ্যাপনা করছেন। মাঝে বিশ্বব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ হিসেবেও কর্মরত ছিলেন।

এরও আগে ২০০৯ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত তিনি ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধান অর্থনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন। দেশটির তখনকার প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের আমন্ত্রণে তিনি এ পদে যোগ দিয়েছিলেন। তখনই তিনি ভারতীয় আমলাতন্ত্রের নানা প্রথার সঙ্গে পরিচিত হন।

চলতি মাসের শুরুতে কৌশিক বসুর একটি স্মৃতিচারণামূলক বই প্রকাশ পেয়েছে। ‘পলিসিমেকারস জার্নাল : ফ্রম নিউ দিল্লি টু ওয়াশিংটন ডিসি’ নামের বইটিতে তিনি নিজের চোখে দেখা ভারতীয় আমলাদের কিছু পছন্দ-অপছন্দ, প্রথা সম্পর্কে বিশদভাবে তুলে ধরেছেন।

সেখানে তোয়ালের ব্যবহার থেকে শুরু করে কথায় কথায় স্যার সম্বোধন, বসার চেয়ারের বিশেষ ধরন, অনুমতি ছাড়াই কক্ষে প্রবেশ, সময়ের কাজ সময়ে করার আপ্রাণ চেষ্টার কথাসহ আরও নানা দিক উঠে এসেছে।

সরকারি কর্মকর্তারা ‘স্যার’ ডাক ভীষণ পছন্দ করেন। বলতেও, শুনতেও। তাই অধস্তনরা কথায় কথায় ঊর্ধ্বতনদের স্যার ডাকেন। কৌশিক বসু বলছেন, ভারতে মিনিটে গড়ে ১৬ বার স্যার শোনার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। একটি সরকারি বৈঠকে তিনি ইচ্ছা করে গুনেছিলেন। ওই বৈঠকে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। একজন জ্যেষ্ঠ সরকারি কর্মকর্তা সেখানে প্রতি মিনিটে গড়ে ১৬ বার স্যার শব্দ উচ্চারণ করেছেন।

এ বিষয়ে কৌশিক বসু বইয়ে লিখেছেন, একবার স্যার শব্দ বলতে যদি আধা সেকেন্ড সময় লাগে, তাহলে ভারতীয় আমলারা তাদের কথা বলার মোট সময়ের ১৩ শতাংশই স্যার শব্দ ব্যবহার করতে ব্যয় করেন।

বিশ্বব্যাংকের প্রণয়ন করা ২০২০ সালের ইজ অব ডুয়িং বিজনেস সূচকে ১৯০টি দেশের মধ্যে ভারতের অবস্থান ৬৩। এ জন্য আমলাতন্ত্রের নানাবিধ প্রথা ও লাল ফিতার দৌরাত্ম্যকে দায়ী করেন অনেকেই।

সূত্র : বিবিসি।

টিএস

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS