Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ৯ আষাঢ় ১৪২৮

আট হাজার মুসলিম হ'ত্যাকারী বসনিয়ার ক'সাইয়ের শেষ পরিণতি

আট হাজার মুসলিম হত্যাকারী বসনিয়ার কসাইয়ের শেষ পরিণতি
রাতকো ম্লাদিচ - সংগৃহীত ছবি

সাবেক সার্ব বাহিনীর প্রধান রাতকো ম্লাদিচ `বসনিয়ার কসাই’ হিসেবে পরিচিত। তাকে বাকিটা জীবন কারাগারেই কাটাতে হবে। বসনিয়ায় ১৯৯২ থেকে ১৯৯৫ সালের যুদ্ধে গণহত্যার মূল হোতা ছিলেন এই ম্লাদিচ।

গণহত্যার দায়ে তার বিরুদ্ধে জাতিসংঘের একটি বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গত মঙ্গলবার যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ বহাল রাখার আদেশ দেন।

ইউরোপের দেশ বসনিয়ায় যুদ্ধকালীন সময়ে ১৯৯৪ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানী সারায়েভো অবরোধ করে রাখা সার্বিয়ার মদদপুষ্ট বসনিয়ার সার্ব বাহিনী মারকালে বাজারের ওপর গোলাবর্ষণ করলে ৬৮ জন নিহত ও ১৫০ জনের বেশি আহত হন।

১৯৯৫ সালের ২৮ আগস্ট মারকালে বাজারে দ্বিতীয়বার সার্ব বাহিনী হামলা করে। মর্টারের গোলাবর্ষণে ওই হামলায় ৪৩ জন নিহত ও ৭৫ জন আহত হন।

বসনিয়ায় ৪৪ মাসের যুদ্ধে সারায়েভোতে মোট ১১ হাজার ৫৪১ জন নিহত হয়েছিলেন যারমধ্যে ১৬০১ শিশু অন্তর্ভুক্ত।

জাতিসংঘের ইন্টারন্যাশনাল রেসিডুয়্যাল মেকানিজম ফর ক্রিমিনাল ট্রাইব্যুনালের পাঁচ বিচারকের এ চূড়ান্ত রায়ের ফলে রাতকো ম্লাদিচ আর আপিল করতে পারবেন না।

বলকান অঞ্চলের যুদ্ধে গণহত্যার মূল হোতা ম্লাদিচের নির্দেশে বসনিয়ার স্রেব্রেনিৎসায় সার্ব বাহিনী প্রায় আট হাজার মুসলিম নারী-পুরুষ ও শিশুকে নির্বিচারে নৃশংসভাবে হত্যা করে।

১৯৯৫ সালে গণহত্যা চালানোর অভিযোগ ওঠার পর থেকে পালিয়ে থাকা ম্লাদিচকে ২০১১ সালের মে মাসে সার্বিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। ২০১৭ সালে জাতিসংঘের যুদ্ধাপরাধ-বিষয়ক ট্রাইব্যুনাল ম্লাদিচকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। তবে রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে আপিল করেন তার আইনজীবীরা। গতকাল মঙ্গলবার তার ওই আপিল খারিজ করে দেন আদালত। সূত্র : ডয়েচে ভেলে।

টিএস

RTV Drama
RTVPLUS