Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ০৭ জুন ২০২১, ১০:০৪
আপডেট : ০৭ জুন ২০২১, ১১:৪৬

শত শত বছর ধরে মুসলিমদের যে দুই ভূখণ্ড দখল করে রেখেছে খ্রিস্টানরা

শত শত বছর ধরে মুসলিমদের যে দুই ভূখণ্ড দখল করে রেখেছে খ্রিস্টানরা
উঁচু দেয়াল তুলে মেলিল্লা শহরটিকে মরক্কো থেকে পৃথক করে রেখেছে স্পেন - সংগৃহীত ছবি

উত্তর আফ্রিকায় স্পেনের দুই সার্বভৌম ভূখণ্ড হলো সুটা এবং মেলিল্লা। কিন্তু ‘সেবতাহ এবং মেলাইলাহ’ হলো মূলত মরক্কোর জায়গা যা স্প্যানিশ খ্রিস্টানরা কয়েকশ বছর ধরে জবরদখল করে রেখেছে।

ইতিহাস অনুযায়ী, ৮ম শতাব্দীতে ইউরোপের ইবেরিয়ান উপদ্বীপ অর্থাৎ স্পেন ও পর্তুগাল শাসন করতেন মুসলিম মূর সম্রাটরা। এই শাসন শুরু হয়েছিল সুটা থেকে। ইউরোপে মুসলমানদের সেই সাম্রাজ্য টিকে ছিল ৮০০ বছর।

পরে খ্রিস্টানরা ইউরোপ থেকে মূর মুসলিমদের তাড়িয়ে দিয়ে সুটা এবং মেলিল্লা দখল করে নেয়। মেলিল্লা দখলের প্রায় দু’শ বছর পর সপ্তদশ শতাব্দীতে সুটাও দখলে নেয় স্পেন।

উপনিবেশবাদ শাসনব্যবস্থা থেকে ১৯৫৬ সালে ফ্রান্সের কাছ থেকে মরক্কো স্বাধীনতা পেলেও সুটা এবং মেলিল্লার নিয়ন্ত্রণ ছাড়েনি স্পেন। মরক্কোর পাশাপাশি আরব বিশ্বের অন্যান্য দেশের শত চেষ্টাও কাজে আসেনি। মরক্কোর রাষ্ট্রবিজ্ঞানী সামির বেনিস বলেন, ফ্রান্সের কাছে থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর মরক্কো ভেবেছিল সুটা এবং মেলিল্লার মালিকানার বিষয়টি আপোষেই সুরাহা হয়ে যাবে। কিন্তু স্পেন কখনই নমনীয় হয়নি।

মুসলমানদের কাছে সুটা এবং মেলিল্লা ইউরোপীয় খ্রিষ্টান শক্তির কাছে তাদের পরাজয় এবং অপমানের স্মৃতি-চিহ্ন। মরক্কোর একজন ঐতিহাসিক লিখেছেন, পুরনো সেই ক্ষত এখনো সারেনি এবং তা সারবেও না যতদিন না ওই দুই ভূখণ্ড আবারো মুসলমানদের নিয়ন্ত্রণে আসে।

মূলত সুটা এবং মেলিল্লা মুসলমানদেরই জায়গা, তা সে যতদিন ধরেই অন্যের দখলে থাকুক না কেন। তাইতো উইকিপিডিয়ায়ও এই দুই শহরের পরিচিতি লেখা হয়েছে হয়েছে- স্পেন নিয়ন্ত্রিত মরক্কোর শহর ।

শহর দুটি আবার মুসলিমদের হাতে ফিরিয়ে আনতে নানারকম চেষ্টা করেছে মরোক্কো। তবে স্পেন কখনই এই দুই শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কোনোরকম আপোষ-মীমাংসায় রাজী হয়নি। তাদের দাবি- এই দুই শহর কয়েকশ বছরেরও বেশি সময় ধরে তাদের নিয়ন্ত্রণে এবং এগুলো স্পেন রাষ্ট্রের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কিন্তু রাজনৈতিক এবং প্রশাসনিক বিবেচনায় ইতিহাসের সিংহভাগ সময় এই দুই শহর মুসলিমদেরই ভূখণ্ড ছিল। সূত্র : বিবিসি

টিএস

RTV Drama
RTVPLUS