Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮

মেয়েকে ওয়ার্ড্রবে ভরে রাখতেন মা, লুকিয়ে খাবার দিত ভাই

Mother is probed for attempted murder after shutting emaciated 'unwanted' baby in wardrobe
সংগৃহীত ছবি

সন্তানের প্রতি মায়ের অপত্য স্নেহ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আর তাই সন্তানকে আগলে রাখতে জীবন বাজি রাখতেও দ্বিধা করেন না মায়েরা। কিন্তু এবার দেখা গেল উল্টো চিত্র।

‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ সন্তানকে বাঁচিয়ে রাখতে চাননি রাশিয়ার এক মা। আর তাই ছোট্ট শিশুটিকে মারার জন্য আটকে রাখতেন ওয়ার্ড্রবে। নিজেরই সন্তানকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে ওই মায়ের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে।

আরও পড়ুন... দুধ খাওয়াতে খাওয়াতে মায়ের মৃত্যু, দমবন্ধ হয়ে মেয়েও শেষ

রাশিয়ার ৩৮ বছর বয়সী ওই নিষ্ঠুর মায়ের নাম ইউলিয়া যাইকোভা। মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা সন্তানের নাম পলিনা। ঘটনাটি জানাজানি হয় প্রতিবেশীদের মাধ্যমে। পরে পুলিশ গিয়ে ছোট্ট শিশুটিকে উদ্ধার করে।

ছোট্ট পলিনাকে যখন উদ্ধার করা হয় তখন তাকে দেখে চমকে ওঠেন উদ্ধারকারীরা। অভুক্ত-কঙ্কালসার পলিনার বেঁচে থাকা নিয়েও সংশয়ে পড়ে যান তারা।

ওয়ার্ড্রবে আটকে রাখার পরও পলিনা বেঁচে যাওয়ার কারণ হলো তারই ১৩ বছর বয়সী ভাই ম্যাটভি মাকে লুকিয়ে লুকিয়ে তার বোনের মুখে খাবার তুলে দিত। আর এভাবেই ধুকে ধুকে বেঁচে ছিল ছোট্ট পলিনা।

উদ্ধারের পর পলিনার এই অবস্থা দেখে চমকে যান উদ্ধারারীরা


ছোট্ট পলিনাকে উদ্ধারের পর তার ছবি নাড়া দিয়েছিল পুরো রাশিয়ার মানুষকে। যেখানে অনেক দম্পতিই সন্তানের আশায় মাথাকুটে মরছে, সেখানে ওই মায়ের এমন কাণ্ড নিয়ে সমালোচনা শুরু হয় দেশটিতে।

জানা গেছে, ওই নারী তার সাবেক সঙ্গী কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়ে ওই শিশুটির জন্ম দেন। আর তাই ওই শিশুটিকে বাঁচিয়ে রাখার ইচ্ছা ছিল না তার।

তবে ধরা পড়ে যাওয়ায় এখন তার বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা ও নিষ্ঠুরতা নিয়ে তদন্ত চলছে। দোষী সাব্যস্ত হলে তাকে ১৫ বছরের সাজা ভোগ করতে হতে পারে।

যাই হোক ছোট্ট সেই পলিনা এখন সুস্থ হয়ে উঠেছে। কদিন আগেই তার প্রথম জন্মদিন পালিত হয়েছে রাশিয়ার এক এতিমখানায়। সেখানে পলিনাকে হাসি-খেলায় সময় পার করতে দেখা গেছে। তাকে দত্তক নেয়ার জন্য নিঃসন্তান রুশ দম্পতিদের আহ্বান জানিয়েছে এতিমখানা কর্তৃপক্ষ। সূত্র : ডেইলি মেইল

টিএস/পি

RTV Drama
RTVPLUS