Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

মেয়েকে ধর্ষণের প্রতিশোধ নিতে দুধের শিশুসহ ৬ জনকে হত্যা

Man kills 6 kin of neighbour who drugged, raped daughter in Visakhapatnam
সংগৃহীত

এক ব্যক্তি তার প্রতিবেশী এক পরিবারের তিন নারী ও দুই শিশুসহ ৬ জনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ওই পরিবারের প্রধান ব্যক্তির ওপর পুষে রাখা রাগ থেকেই তিনি এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে জানা গেছে। ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপাটনাম শহরের জুট্টাদায় বৃহস্পতিবার এই পিলে চমকানো ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে ৬ মাস বয়সী এক শিশুও রয়েছে। তারা বলছে, ভুক্তভোগী পরিবারের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে হামলাকারী ব্যক্তির মেয়েকে ২০১৮ সালে ধর্ষণের অভিযোগ ছিল। ওই ব্যক্তিই এই হামলার মূল টার্গেট ছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

তবে ওই হামলার সময় প্রধান অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং তার বড় ছেলে বাড়িতে উপস্থিত ছিল না। তাই তারা এই হামলা থেকে বেঁচে যান। একটি বিয়েতে যোগ দিতে নিহত ব্যক্তিরা দুই বছর পর ফিরেছে এমনটা জানার পর ধর্ষককে হত্যার উদ্দেশ্যে ওই বাড়িতে যায় হামলাকারী ব্যক্তি।

হামলাকারী ব্যক্তি একটি কাস্তে দিয়ে একে একে সবাই কুপিয়ে হত্যা করে। পুরো বাড়ি জুড়ে বিভিন্ন জায়গায় লাশ ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল। আর রক্তে ভেসে গিয়েছিল পুরো বাড়ি। তবে এমন বীভৎস হামলার পর সেখান থেকে পালিয়ে যাননি ওই ব্যক্তি। তাকে ঘটনাস্থল থেকেই গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

হামলায় নিহত ব্যক্তিরা হলেন- ধর্ষকের বাবা (৫৭), স্ত্রী (৩০), ছেলে (২), মেয়ে (৬ মাস) এবং শ্বাশুড়ি (৫৩)। বাড়িতে উপস্থিত থাকার দূরসম্পর্কের এক আত্মীয়ও হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়। ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর এই পরিবারটি বিজয়বাড়াতে বাস করছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, ২০১৮ সালে হামলাকারী ব্যক্তির মেয়েকে বাসায় ডেকে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে কয়েকবার ধর্ষণ করে প্রতিবেশী ব্যক্তি। পরে তাকে গ্রেপ্তার করা হলেও সে জামিনে মুক্ত হয়। ধর্ষকের স্ত্রীও ধর্ষণের শিকার মেয়েকে নগ্ন ছবি দেখিয়ে অর্থ আদায়ের চেষ্টা করে। এমনকি তার আত্মীয়রাও তাকে ব্ল্যাকমেইল করতে থাকে তাকে।

ওই মেয়ের ভাই হোয়াটসঅ্যাপ এসব মেসেজ দেখে পুলিশে ধর্ষণের মামলা দায়ের করে। এ বিষয়কে অভিযুক্ত ব্যক্তি ও তার পরিবারকে প্রশ্ন করলে তারা দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। এর প্রায় দুই বছর এমন হত্যাকাণ্ড ঘটালেন ধর্ষণের শিকার মেয়ের বাবা।

RTV Drama
RTVPLUS