logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭

ঝাড়ু দিয়ে মেরে এবং রডের ছ্যাকা দিয়ে গৃহকর্মী হত্যা: গৃহকর্ত্রীর স্বীকারোক্তি

Singaporean admits to abusing, killing maid
গায়েত্রী মুরুগায়ান

সিঙ্গাপুরের একজন নারী তার গৃহকর্মীকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। মিয়ানমারের ওই গৃহকর্মী নাগরিককে না খেতে দিয়ে, নির্যাতন করে হত্যা করেন সিঙ্গাপুরের ওই নারী। দেশটির সরকারি কৌঁসুলিরা বলছেন, নগর রাষ্ট্রটিতে গৃহকর্মী নির্যাতনে এটা অন্যতম ভয়াবহ একটি ঘটনা।

সিঙ্গাপুরে প্রায় আড়াই লাখ গৃহকর্মী রয়েছে। তাদের অধিকাংশই দক্ষিণ এশিয়ার গরিব দেশের নাগরিক। সিঙ্গাপুরে এই গৃহকর্মীরা প্রায়ই নির্যাতিত হয়ে থাকে। কিন্তু পিয়াং এনগাইহ ডনকে যেভাবে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে তা খুবই মারাত্মক।

পিয়াংকে পিষে, গলা টিপে, ফাঁস দিয়ে, ঝাড়ু দিয়ে মেরে এবং রডের ছ্যাকা দিয়ে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। ২৪ বছর বয়সী পিয়াং এমন নির্মমভাবে নির্যাতন করে হত্যা করেছেন ৪০ বছর বয়সী গায়েত্রী মুরুগায়ান। তার বিরুদ্ধে ২৮টি অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

পরে এ মামলা রায় দেয়া হবে। তবে এজন্য গায়েত্রীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে। সরকারি আইনজীবীরা বলছেন, একজন মানুষ যে আরেকজন মানুষের সঙ্গে এমন অমানবিক আচরণ করতে পারে, তা আদালতে রাগান্বিত করেছে। আইনের পুরো প্রয়োগ হওয়া উচিত।

গায়েত্রী এবং তার পুলিশ স্বামী ২০১৫ সালে তাদের চার বছর বয়সী মেয়ে এবং এক বছর বয়সী ছেলেকে দেখভালের জন্য পিয়াংকে নিয়োগ দেয়। কিন্তু তাকে প্রায় প্রতিদিনই নির্যাতিত হতে হতো। মাঝে মাঝে গায়েত্রীর ৬১ বছর মা-ও এই নির্যাতনে শামিল হতেন।

এক বছরের বেশি সময় ধরে নির্মম নির্যাতনের পর ২০১৬ সালের জুলাইয়ে মারা যায় পিয়াং। পিয়াংকে প্রায়ই না খাইয়ে রাখা হতো বা খুব অল্প খাবার দেয়া হতো। আবার গোসল এবং টয়লেট করার সময় বাথরুমের দরজা খুলে রাখতে বাধ্য করা হতো।

নির্যাতনের মাত্রা এত বেশি ছিল যে, রাতে মাত্র পাঁচ ঘণ্টা ঘুমাতে দেয়া হতো পিয়াংকে। গায়েত্রীর বাসায় থাকা অবস্থায় পিয়াংয়ের ওজন প্রায় ৩৮ শতাংশ কমে যায়। যখন পিয়াংয়ের মৃত্যু হয় তখন তার ওজন ছিল মাত্র ২৪ কেজি।

RTV Drama
RTVPLUS