ফ্রান্সে মুসলিমদের কোনঠাসা করার বিলে অনুমোদন

প্রকাশ | ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:৪১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি নিউজ
সংগৃহীত

ফ্রান্সের সেক্যুলার নীতি আরও শক্তিশালী করতে দেশটির এমপিরা বিতর্কিত একটি বিলে অনুমোদন দিয়েছে। তবে সমালোচকরা বলছেন, এই বিল আইনে পরিণত হলে নাগরিক অধিকার অধিকার হুমকির মুখে পড়তে পারে। বিশেষ করে দেশটিতে বসবাসকারী ৫৭ লাখ মুসলিম কমিউনিটির অধিকার খর্ব হতে পারে।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ মঙ্গলবার তথাকথিত এই ‘বিচ্ছিন্নতাবাদ বিরোধী’ বিলটি ভোটাভুটির জন্য পার্লামেন্টে উত্থাপন করেন। পরে এমপিরা এই বিলের সমর্থন দেন। ফলে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে এই বিলটি আইনে পরিণত হওয়ার রাস্তার সুগম হলো।

দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে ওই বিল উত্থাপন করেন ম্যাক্রোঁ। এই কক্ষে ম্যাক্রোঁর দল মধ্যপন্থী লা রিপাবলিক এন মার্চ (এলআরইএম) পার্টির সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে। তাই বিলটি ৩৪৭-১৫১ ভোটে পাস হয়। আর ৬৫ জন এমপি ভোটদানে বিরত ছিলেন।

এখন এই বিলটি পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেটে পাঠানো হবে। সিনেটের আধিপত্য রয়েছে রক্ষণশীলদের হাতে। বিলটি সংশোধন করার ক্ষমতা রয়েছে সিনেটের। তবে তারা বিদ্যমান বিলটির কোনও পরিবর্তন না ঘটিয়ে অনুমোদন দিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড ডারমানিন মঙ্গলবার ওই ভোটাভুটির আগে আরটিএল রেডিওকে বলেছিলেন, এটা পুরো মাত্রা সেক্যুলার একটি আইন। তিনি বলেন, এটা ভাষা বেশ কঠোর কিন্তু প্রজাতন্ত্রের জন্য এটা প্রয়োজনীয়।

আইনটিতে ৭০টির বেশি ধারা রয়েছে, যেখানে প্রার্থনার স্থান ও ধর্মীয় স্কুল বন্ধ করে দেয়ার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে সরকারকে। এমনকি ‘চরমপন্থী’ হিসেবে বিবেচিত ধর্ম প্রচারকদেরও নিষিদ্ধ করতে পারবে সরকার।