logo
  • ঢাকা বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:০০
আপডেট : ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৫৬

যুক্তরাষ্ট্রে সশস্ত্র বিক্ষোভের শঙ্কায় ৫০ অঙ্গরাজ্যে সতর্কতা

Warning in 50 states over fears of armed protests in the United States
যুক্তরাষ্ট্রে সশস্ত্র বিক্ষোভের শঙ্কায় ৫০ অঙ্গরাজ্যে সতর্কতা

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ২০ জানুয়ারি শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান ঘিরে সহিংস বিক্ষোভের শঙ্কায়, ওয়াশিংটন ডিসির পাশাপাশি ৫০টি অঙ্গরাজ্যে সতর্কতা জারি করেছে প্রশাসন। বিভিন্ন স্থানে ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া, রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসির একটি চেক পয়েন্টে অস্ত্রসহ একজন মার্কিনকে আটক করেছেন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

শনিবারের মতোই ক্যালিফোর্নিয়া, মিশিগান, পেনসিলভেনিয়া, কেন্টাকি এবং ফ্লোরিডাসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে নিরাপত্তা জোরদার করতে সক্রিয় জাতীয় গার্ড বাহিনী। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাটালিয়নরা শহরের কেন্দ্রজুড়ে অবস্থান করছে। ওয়াশিংটন ডিসি জনশূন্য। এছাড়াও রাজধানীর নিকটবর্তী রাস্তাগুলো বন্ধ রয়েছে।

গত ৬ জানুয়ারি ট্রাম্প সমর্থকরা মার্কিন কংগ্রেসে হামলা চালায়; যা দেশটির গণতন্ত্রকে হামলার শামিল। এ হামলার ঘটনায় সমর্থকদের ‘দেশপ্রেমিক’ আখ্যা দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় স্ট্যাটাস দেন সদ্যবিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যার কারণে ট্রাম্প সমর্থকদের নিয়ে আশঙ্কা থাকায় নিরাপত্তা জোরদার করছে দেশটির জাতীয় গার্ড বাহিনী।

এর আগে শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) জানা যায়, হোয়াইট হাউজ ছাড়ার জন্য শেষ প্রস্তুতি নিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইতোমধ্যে হাউজ থেকে ট্রাম্পের যাবতীয় আসবাবপত্র গোছানোর কাজ শুরু হয়েছে।

বিশ্বস্ত একটি সূত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে, ট্রাম্প এর আগে মঙ্গলবার অর্থাৎ উদ্বোধনের আগের দিন রাজধানী ছাড়ার পরিকল্পনা করেছিলেন। তিনি প্রথমে এমন চিন্তা ভাবনা করলেও পরে পরিকল্পনা বদলান এবং বুধবার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের উদ্বোধনের দিন ওয়াশিংটন ত্যাগ করার পরিকল্পনা করেন। তবে এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনও ঘোষণা করা হয়নি।

গত ৬ জানুয়ারি ওয়াশিংটনের ক্যাপিটল ভবনে মার্কিন সিনেট এবং প্রতিনিধি পরিষদের যৌথ অধিবেশন বসে। সেখানে সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিজয় নিশ্চিত করার জন্য ইলেক্টরাল ভোটের আনুষ্ঠানিক গণনা করা হয়। ঠিক সেই সময় ট্রাম্প সমর্থকরা মার্কিন কংগ্রেসে হামলা চালায়। আর সেই হামলাকে সমর্থন জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপর সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী অধিবেশনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইমপিচ করতে মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট সদস্যরা প্রস্তাব উত্থাপন করেন। সূত্র : আল-জাজিরা

এসআর/পি

RTV Drama
RTVPLUS